আন্দোলনরত ছাত্র ছাত্রীদের উপর লাঠিচার্জ করায় উত্তাল জিকেসিআইটি

0
47

হরষিত সিং, মালদহঃ
গনিখান চৌধুরি কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র ছাত্রীদের উপর লাঠিচার্জের অভিযোগ উঠল পুলিশ ও নিরাপত্তারক্ষীদের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ছাত্র ছাত্রীদের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তারক্ষীদের তুমুল গোলমাল হয়।বিক্ষোভকারী ছাত্র-ছাত্রীদের অভিযোগ,ডিপ্লোমা সার্টিফিকেট ও ভর্তির দাবি জানানো হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তারক্ষীরা তাদের বেধড়ক লাঠিপেটা করেছে।

ছাত্রীদের উপর লাঠিচার্জ। ছবিঃ অভিষেক দাস

এমনকি আন্দোলনকারী এক ছাত্রের হাত ভেঙে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ। নিরাপত্তারক্ষীদের মারে তিন জন আন্দোলনকারী ছাত্র গুরুতর জখম হয়েছেন।তাদের মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে।
অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের পাল্টা অভিযোগ, ছাত্ররা নয় কিছু বহিরাগতরা এদিন অন্যায় ভাবে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ঢুকে তান্ডব চালিয়েছে। ‘এ’ ব্লকের পরীক্ষা চলাকালীন বহিরাগতরা ছাত্র ছাত্রীদের খাতা কেড়ে নেই। বাধা দিতে গেলে দরজা, জানালার কাঁচ ভাঙচুর করে বহিরাগতরা।এদিকে নারায়নপুর এলাকায় অবস্থিত গনি খান চৌধুরী কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয় গোলমালের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশবাহিনী নিয়ে পৌঁছায় পুরাতন মালদা থানার আইসি মানবেন্দ্র সাহা।

ছবিঃ অভিষেক দাস

পুলিশি হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।উল্লেখ্য গত ১২ নভেম্বর থেকে গনিখান চৌধুরী ইন্সটিটিউট অফ ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজিতে শুরু হয়েছে ডিপ্লোমা পরীক্ষা।ইলেকট্রিক্যাল ,মেকানিক্যাল, ফুড এন্ড নিউট্রিশন এবং কম্পিউটার বিষয়ক পরীক্ষা চলছে।ডিপ্লোমা কোর্সের শুক্রবার এই পরীক্ষা শেষ হওয়ার কথা কিন্তু প্রাক্তন পড়ুয়াদের অভিযোগ,তাদের কোর্স সম্পন্ন হয়ে গেলেও এখনো ডিপ্লোমা কোর্সের সার্টিফিকেট দেওয়া হয় নি।অথচ আবার নতুন করে ডিপ্লোমা কোর্সগুলির পরীক্ষা ভর্তির জন্য পরীক্ষা নেওয়া শুরু হয়েছে।আগে প্রথম থেকে তৃতীয় বর্ষের সার্টিফিকেট পুরনো দের দেওয়া হোক।তার পরেই নতুন করে পরীক্ষা নেওয়া হোক।এই দাবি নিয়েই ছাত্রছাত্রীরা আন্দোলন শুরু করেছেন।
আন্দোলনরত এক ছাত্র শাহিন জাহেদীর অভিযোগ, “আমাদের ডিপ্লোমা কোর্স সম্পূর্ণ হলেও এখনো সার্টিফিকেট দেওয়া হয় নি।যারা প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষের কোর্স সম্পন্ন করে ফেলেছেন তাদের নতুন করে ভর্তি নেওয়া হচ্ছে না।পুরনো ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতি এমন আচরণ কেন করা হচ্ছে তারই প্রতিবাদ জানিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই এই বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলন চলছে।আর সেই আন্দোলন তুলতেই বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তারক্ষীরা আমাদের লাঠিপেটা করেছে ।” লাঠির আঘাতে মোট ১৫ জন ছাত্র ছাত্রী আহত হয়।এদের মধ্যে ১২ জন মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

চিকিৎসাধীন ছাত্র। ছবিঃ অভিষেক দাস

এর বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বৃহত্তর আন্দোলনে নামার ডাক দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ পথদুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুলিশ-জনতা খণ্ডযুদ্ধ

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here