পণবন্দী জওয়ানকে মুক্তি দিতে রাজি, বিবৃতি মাওবাদীদের তরফে

0
43

নিজস্ব সংবাদদাতা, ওয়েব ডেস্কঃ

বিজাপুর সংঘর্ষের পাঁচদিন পর বিবৃতি মাওবাদীদের পক্ষ থেকে। বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, পণবন্দী জওয়ানকে মুক্তি দিতে রাজি মাওবাদীরা। তবে সেই প্রক্রিয়া হবে মধ্যস্থতাকারীর মাধ্যমে। সরকারকে মানতে হবে তাঁদের শর্ত। ওই বিবৃতিতে তাঁরা আরো জানিয়েছেন, পুলিশ বা জওয়ানদের সঙ্গে তাঁদের কোনও শত্রুতা নেই। তবে সরকারের বিরুদ্ধে এই লড়াই চলবে।

jawan | newsfront.co
প্রতীকী চিত্র

বিবৃতিতে মাওবাদীদের দাবি, ওই সংঘর্ষে ২৪ জওয়ানের মৃত্যু হয়েছে। জখম হয়েছেন ৩১ জন। আরও এক কোবরা কমান্ডো পণবন্দী। তাদেরও চার সঙ্গীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানানো হয়েছে মাও সংগঠনের তরফে। বিবৃতি জারি করে তাঁদের দাবি, সরকারের সঙ্গে দর কষাকষিতে রাজি তারা। তবে তার আগে মধ্যস্থতারীর নাম জানাতে হবে সরকারকে। তবেই মুক্তি দেওয়া হবে বন্দী জওয়ানকে।

কেন্দ্রকে দেওয়া মাওবাদীদের হুঁশিয়ারিতে দাবি করা হয়েছে, তাদের লড়াই নিরাপত্তারক্ষীদের বিরুদ্ধে নয়। কিন্তু তাদের উপর আঘাত এলে, তারাও পালটা আঘাত করবে। এ বিষয়ে একটি পরিসংখ্যানও তুলে ধরেছে তারা। পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত চার মাসে দেশের বিভিন্ন জায়গায় বাহিনীর সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ২৮ জন মাওবাদী।

আরও পড়ুনঃ ১ লক্ষ ছাঁটাই হতে চলেছে ভারতীয় সেনাতে, জানিয়েছেন বিপিন রাওয়াত

ওই বিবৃতিতে দাবি, ‘আমাদের বিরুদ্ধে বন্দুক নিয়ে আক্রমণ হলে, আমরাও তৈরি আছি।আমাদের রাষ্ট্র বিরোধিতা জারি থাকবে।’মাওবাদীদের এই পাল্টা জবাবকে অবশ্য আমল দিতে নারাজ কেন্দ্র। বরং সরকারি সূত্রে দাবি, ভয় পেয়েই নিরাপত্তারক্ষীদের উপর গত রবিবার একতরফা আক্রমণ করা হয়েছে।

গত চার বছরে ছত্তিশগড়ের মাওবাদী অধ্যুষিত বস্তার ও সুকমা অঞ্চলে ক্রমাগত ক্যাম্পের সংখ্যা বাড়িয়েছে কোবরা বাহিনী। ঘন জঙ্গলের ভিতরে প্রায় ৬০০ বর্গ কিলোমিটার এলাকা ধীরে ধীরে নিজেদের দখলে নিয়েছে। মূলত বাহিনীর এই আগ্রাসনেই ওই এলাকা থেকে পিছু হঠতে বাধ্য হয়েছে মাওবাদীরা, এমনটাই জানিয়েছে কেন্দ্র।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485