গামিলা নবীন সংঘের সাহায্যের হাত, সম্পন্ন হল হাজার অধিক মানুষের করোনা ভ্যাকসিন

0
13

শরীয়তুল্লাহ সোহন, ওয়েব ডেস্কঃ

মুর্শিদাবাদ জেলার লালগোলা ব্লকের ক্রীড়া, সংস্কৃতি ও সচেতনতা মূলক কর্মসূচি রূপায়ণের সঙ্গে ওতোপ্রোতো ভাবে জড়িত স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গামিলা নবীন সংঘ। এরা সারাবছর নানারকম জনকল্যাণমুখী কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে, কখনো নিজস্ব উদ্যোগে কখনও বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারী সংস্থার সহযোগিতায়।

Lalgola BDO Subrata Ghosh
ভ্যাকসিন এর কাজে তদারকি করছেন লালগোলা BDO সুব্রত ঘোষ। নিজস্ব চিত্র

কোভিড পরিস্থিতিতেও পিছিয়ে নেই গামিলা নবীন সংঘ। লকডাউন ঘোষণার সাথে সাথেই সরকারি ঘোষণা ও নির্দেশাবলি সবার ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে এরা চালায় সচেতনতা মূলক প্রচার কর্মসূচি। বাইরে থেকে ফিরে আসা পরিযায়ী শ্রমিকদের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে পাঠানো, সেফ আইশোলশনে থাকার ব্যবস্থা করা হয় এই ক্লাবের উদ্যোগে।
লকডাউনে কাজ হারানো শ্রমিকদের খাদ্যের ব্যবস্থা, ঔষধ পৌঁছে দেওয়া, অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দেওয়া থেকে শুরু করে যাবতীয় কর্মসূচি রূপায়ণ করে চলেছিল, ক্লাবের সদস্যদের নিয়ে।

gathering for vaccine
ভ্যাকসিনের জন্য লম্বা লাইন বাইরে। নিজস্ব চিত্র

শুধু তাই নয় কোভিড পরিস্থিতিতে রক্তশূন্যতায় ভুগতে থাকা ব্লাড ব্যাংকগুলিতে রক্তের চাহিদা পূরনে করা হয়েছে ২ বার স্বেচ্ছায় রক্তদান শিবিরের মধ্যে দিয়ে। এছাড়াও জরুরি প্রয়োজনে সরাসরি রক্তের চাহিদা মেটাতে, সংস্থার সদস্যরা ব্লাডব্যাংক গিয়েও রক্তদান করে বাঁচিয়ে চলেছে অসংখ্য মানুষের জীবন।

vaccine process
ক্লাবের ছেলেদের অক্লান্ত পরিশ্রমে চলছে ভ্যাকসিনের কাজ।নিজস্ব চিত্র

গত কয়েকমাস ধরে যশইতলা গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত স্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলির সাথে যুক্ত হয়ে লালগোলা ব্লক প্রশাসনের সহযোগিতায় আয়োজিত কোভিড মোকাবিলায় ভ্যাকসিনেশনে, গামিলা নবীন সংঘ যশইতলা গ্রাম পঞ্চায়েতের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিসেবে কাজ করে চলেছে স্বেচ্ছায় এবং সম্পূর্ণ বিনা পারিশ্রমিকে। প্রতিদিন গামিলা নবীন সংঘ ক্লাবের কয়েকজন সদস্য সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত খেয়ে না খেয়ে প্রচন্ড পরিশ্রম করে। এরা ভ্যাকসিনের পূর্বে মোবাইলে রেজিষ্ট্রেশন এর মতো গুরুত্বপূর্ণ কাজটি করে দেয়।

আরও পড়ুনঃ ট্রেনের টিকিট কাটা আরও সহজ করতে নিয়মে বদল আনল রেল

এছাড়াও ভ্যাকসিন নিতে আগত মানুষের নানাবিধ সমস্যা,ঝক্কি ঝামেলা নিয়ন্ত্রণ করেন এই ক্লাবের ছেলেরা। বিশেষ করে গামিলা নবীন সংঘ ক্লাবের পক্ষ থেকে সবচেয়ে বেশি পরিশ্রম করে চলেছে এবং সময় দিচ্ছে — জুয়েল, সুফিয়ান, আনাস, আশিক, বুবাই ও রাকিব দের মতো একগুচ্ছ তরুণ, তরতাজা যুবক। যাদের অক্লান্ত পরিশ্রম ছাড়া ভ্যাকসিনেশনের গুরুত্বপূর্ণ অংশ সম্পাদন করা প্রায় অসম্ভব ছিল বলে স্বীকার করে নিয়েছে ব্লক প্রসাশনিক আধিকারিক সহ ভ্যাকসিনেশনে আসা গোটা টীম।

আরও পড়ুনঃ ফের রাজ্যে হাজার ছুঁইছুঁই দৈনিক সংক্রমণ, গত ২৪ ঘণ্টায় কলকাতায় আক্রান্ত ২৬৮

গতকাল অর্থাৎ শনিবার ১০৫০ জন সাধারণ মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে যশইতলা গ্রাম পঞ্চায়েতের। গতকাল ক্যাম্প পরিদর্শনে উপস্থিত ছিলেন লালগোলা ব্লকের সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক সন্মানীয় সুব্রত ঘোষ মহাশয়। তিনি গামিলা নবীন সংঘের বিভিন্ন সামাজিক কর্মসূচি তে অংশগ্রহণের ব্যাপারটি তুলে, ক্লাব কর্তৃপক্ষ ও ক্লাবের সদস্যদের প্রসংশায় ভরিয়ে তোলেন।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here