প্রত্যন্ত গ্রামবাসীদের সংক্রমণ এড়ানোর বার্তা-ত্রাণ বিলি প্রাক্তন এনসিসি ক্যাডারদের

0
35

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাঁকুড়াঃ

বাঁকুড়া জেলার প্রত্যন্ত গ্রামে অসহায় সাধারণ মানুষদের সাহায্যার্থে মাইকিং করে এগিয়ে এল প্রাক্তন এনসিসি ক্যাডাররা।এই মুহূর্তে দেশ জুড়ে আতংকের আরেক নাম নোভেল করোনা ভাইরাস । আর এই নোভেল করোনা ভাইরাসই গোটা বিশ্বে মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

announcement | newsfront.co
মাইকিং-এ প্রচার। নিজস্ব চিত্র

ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে দেশ জুড়ে চলছে লকডাউন,যার ফলে গৃহবন্দি সাধারণ মানুষের জীবন তটস্থ হয়ে উঠেছে ।এই অবস্থায় প্রাক্তন এনসিসি ক্যাডারদের পক্ষ থেকে মাইকিং করে বাইরে না বেরোনো ও গুজব না ছড়ানোর পরামর্শ দেওয়া হয়।

awareness | newsfront.co
নিজস্ব চিত্র

এই রকম কঠিন পরিস্থিতিতে সব থেকে বেশি সমস্যায় পড়তে হয়েছে দিন আনা দিন খাওয়া সাধারণ মানুষদের । ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকার রাজ্যবাসীকে বিনা পয়সায় রেশন দেওয়া শুরু করেছেন। ফলে উপকৃত হচ্ছেন রাজ্যের অধিকাংশ সাধারণ মানুষ ।

আরও পড়ুনঃ সরকারি বিধি নিষেধকে মান্যতা দিয়ে ঔরস মোবারক বন্ধ

কিন্তু তারপরেও এই রকম কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়ে বাড়িতে বসে থাকতে পারেননি বাঁকুড়া জেলার প্রাক্তন এনসিসি ক্যাডাররা । তারাও বাঁকুড়া জেলার বিভিন্ন প্রত্যন্ত গ্রামগুলোতে ঘুরে ঘুরে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছেন এবং তাদেরকে নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রদান করছেন ও ভাইরাস সম্পর্কে তাদের সচেতন করছেন ।
এদিন বাঁকুড়া জেলার বেলিয়াতোড় থানার অন্তর্গত ধবনি গ্রামে এনসিসি ক্যাডাররা পৌঁছে যান। সেখানে থাকা প্রায় কয়েকশো দুঃস্থ পরিবারকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন তাঁরা।

পাশাপাশি এদিন গ্রামের এই মানুষগুলোর হাতে চাল,ডাল, বিস্কুট ও সাবান তুলে দেওয়া হয়। শুধু তাই নয়, সাধারণ মানুষকে সচেতন করার জন্য করোনা ভাইরাস সম্পর্কিত লিফলেট তুলে দেন তাদের হাতে । এমনকি সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে মাইকিং এর মধ্য দিয়ে প্রচার চালানো হয় ।

যদিও এ বিষয়ে পান্না বাউরী নামে এক গ্রামবাসী বলেন , কাজ না করলে খাব কি? তাই এই কঠিন পরিস্থিতিতে তারা আমাদেরকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে এতে আমরা অত্যন্ত খুশি। এর পাশাপাশি এদিন হারাধন কর্মকার নামে প্রাক্তন এক এনসিসি ক্যাডার বলেন , আমাদের একটাই উদ্দেশ্য দেশকে বাঁচিয়ে রাখা, আর সে জন্যই আমরা মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি।

এছাড়াও তিনি বলেন, আমার আর্মিতে কাজ করার ইচ্ছে ছিল কিন্তু হাইট এর কারণে হয়ে ওঠেনি। তবে আজকে এই যুদ্ধে অংশগ্রহণ করতে পেরে মানুষের জন্য কিছু করতে পেরে নিজেকে গর্ববোধ করছি। তাদের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন এলাকার বাসিন্দারা।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here