ইতিমধ্যে পাঁচ শতাধিক মাদ্রাসার আবেদন, কমিশনের ডাকে ব‍্যাপক সাড়া

0
1866

আনিসুর রহমান, কোলকাতাঃ-

গত ১৭ ই মে’র সর্বোচ্চ আদালতের অন্তর্বতী রায়কে সামনে রেখে পশ্চিমবঙ্গ মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন এখন যুদ্ধকালীন তৎপরতায় কাজ চালাচ্ছে।আদেশনামাটিকে যথাযথ ভাবে মেনে কমিশন রাজ‍্যের সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত সমস্ত মাদ্রাসার উদ্দেশ্য বিজ্ঞপ্তি জারি করে। সেই বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী কমিশনের মাধ্যমে শিক্ষক পেতে ইচ্ছুক মাদ্রাসাগুলোকে ৮ই জুনের মধ্যে আবেদন করতে বলা হয়।

আবেদনের সেই বিজ্ঞপ্তি

কমিশনের ডাকা সাড়া দিয়ে ইতিমধ্যে পাঁচ শতাধিক মাদ্রাসা আবেদন করেছে বলে কমিশন সূত্রে জানা গেছে। কমিশন সূত্রে আরও জানা যায় মাদ্রাসাগুলো  গ্ৰীষ্মাবকাশ ও রোজার ছুটির জন্য বন্ধ থাকায় আবেদনের ক্ষেত্রে বেশ কিছু অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছে ।তারা সেই অসুবিধার কথা মেল মারফত জানিয়েছেও ।তবে এখনো দুদিন সময় আছে। শেষ দুদিনে আরও মাদ্রাসা কমিশনের দোরগোড়ায় হাজির হবে বলে আশা প্রকাশ করছে কমিশন। এ প্রসঙ্গে, মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ জানান,” আজকের শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত রাজ‍্যের ৫১৮ টি মাদ্রাসার ম‍্যানেজিং কমিটি কমিশনের মাধ্যমে শিক্ষক নেওয়ার জন্য আবেদন করেছেন।আরো দুদিন আছে, দেখা যাক!”

উল্লেখ্য, কমিশনের মাধ্যমে যাতে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ গুলো মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের কাছে দ্রুত শিক্ষক চেয়ে আবেদন করে সেই দাবি নিয়ে জেলায় জেলায় বিভিন্ন মাদ্রাসায় ইতিমধ্যে বিক্ষোভে অবতীর্ণ হয়েছে বহু ছাত্র ছাত্রী, অভিভাবক থেকে সাধারণ মানুষজন কারণ মাদ্রাসা গুলো শিক্ষকের অভাবে ধুঁকছে।কিন্তু তাদের অভিযোগ কিছু মাদ্রাসার ম‍্যানেজিং কমিটি কমিশনের মাধ্যমে দ্রুত শিক্ষক নেওয়ার সুযোগ থাকলেও কমিশনে আবেদন করতে টালবাহানা করছে। এই নিয়ে রাজ‍্যের বিভিন্ন জেলায় পথ অবরোধও করা হয়। এমনকি পুলিশকেও অনেক জায়গায় নাক গলাতে হয় বিক্ষোভ থামাতে।

প্রসঙ্গক্রমে উল্লেখ করা যায় যে, ‘কমিশনের মাধ্যমে শিক্ষক পেতে ইচ্ছুক মাদ্রাসাগুলোর শিক্ষক গ্রহণে কোনরুপ সমস্যা হলে বিশদে যেন তারা কমিশনকে দ্রুত জানায়’ এই মর্মে গত এক তারিখে আবারও একটি বিজ্ঞপ্তি মাদ্রাসা গুলোকে পাঠিয়েছে কমিশন।

নতুন বিজ্ঞপ্তি

উল্লেখ্য, সুপ্রিমকোর্টে এই মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ১২ জুলাই। তাই কেস দ্রুত মিটুক বা না মিটুক ( আপাতত কেস দ্রুত মেটার সম্ভাবনা খুব কম বলেই ধারণা আইনজীবী মহলের) মাদ্রাসা গুলোকে প্রাণ ফেরাতে সরকার যে তৎপর সেটা কমিশনের তৎপরতা দেখেই বোঝা যাচ্ছে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485