রামপুরহাটে বিপুল বিস্ফোরক উদ্ধার

0
28

পিয়ালী দাস,বীরভূমঃ

গোটা বীরভূম যেন বারুদের স্তূপ,এমটাই অভিযোগ ছিল বিরোধীদের।গত তিনদিন ধরে বীরভূম জেলা পুলিশ যেভাবে বিস্ফোরকসহ একাধিক থানা এলাকায় বোমা এবং অস্ত্র উদ্ধার করছে তাতে বিরোধীদের অভিযোগকে মান্যতা দেওয়া হচ্ছে।

rescued huge explosive at Rampurhat | newsfront.co
উদ্ধার হওয়া বিস্ফোরক।নিজস্ব চিত্র

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বীরভূমের রামপুরহাট থেকে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক উদ্ধার করল পুলিশ। বেআইনি পাথর খাদানের জন্য এই বিস্ফোরক আনা হয়েছিল বলে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান। সিআইডির গোয়েন্দারা ঘটনাস্থলে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন জেলার পুলিশ সুপার শ্যাম সিং।

নির্দিষ্ট সূত্রে খবর পেয়ে মঙ্গলবার গভীর রাতে রামপুরহাট থানার বড়জোল গ্রাম সংলগ্ন একটি কালভার্টের কাছে একটি গোডাউনে হানা দেয় পুলিশ। সেখানে মেলে ১১,৯০০ কেজি অ্যামোনিয়া নাইট্রেট ও ৮০ হাজার ডিটোনেটর।এই বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক দেখে হতচকিত হয়ে পড়ে পুলিশ। সঙ্গে সঙ্গে খবর দেওয়া হয় বম্ব স্কোয়াডকে।আজ সকালে সিআইডিকেও খবর দেওয়া হয়।

জেলার পুলিশ সুপার শ্যাম সিং বলেন,“এই বিপুল বিস্ফোরক উদ্ধারের পরেই বম্ব স্কোয়াডকে খবর দিয়েছিলাম আমরা।খবর দেওয়া হয় সিআইডিকেও। কোথা থেকে কারা এত বিপুল বিস্ফোরক এনে জমা করল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।”

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, এলাকার পাথরের খাদানগুলোতে ব্যবহারের জন্য এই বিপুল বিস্ফোরক জমা করা হয়েছিল বলে প্রাথমিক অনুমান।দুষ্কৃতীদের অন্য কোনও উদ্দেশ্য রয়েছে কী না, খতিয়ে দেখা হচ্ছে তাও।

জেলার ঝাড়খণ্ড লাগোয়া এলাকায় রয়েছে দুশোরও বেশি পাথর খাদান।এর মধ্যে মাত্র ছ-সাতটি বৈধ বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুনঃ সমবায়ের সম্পদ লুঠের অভিযোগে বিক্ষোভ বাঁকুড়া

এলাকার বাসিন্দাদের মতে, সমস্ত বেআইনি খাদানই চলছে প্রশাসনের নাকের ডগায় রমরমিয়ে।এই খাদানগুলিতে ব্যবহারের জন্য এমন বিস্ফোরক এনে রাখার নজির আগেও মিলেছে। এর আগে মহম্মদবাজার ও নলহাটি থেকেও বিস্ফোরক উদ্ধার হয়েছে।তবে পুরোটাই আপাতত তদন্তের বিষয় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485