মালদায় একাধিক কলেজে অবস্থান বিক্ষোভ

0
214

নিজস্ব সংবাদদাতা,নিউজ ফ্রন্ট,চাঁচলঃ

কলেজের বার্ষিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান জাঁকজমক পূর্ণ ভাবে করার জন্য ছাত্রছাত্রীরা উদগ্রীব।কিন্তু নিরাপত্তা বিঘ্নিত হওয়ার আশংকায় প্রশাসনের তরফ থেকে অনুমতি দেওয়া হয়নি।তাই অনুমতি না মেলায় কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে ঘেরাও করে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করেছে কলেজ পড়ুয়ারা।মালদহের চাঁচল কলেজে দুপুর থেকে ছাত্র পরিষদের ওই ঘেরাও বিক্ষোভের পাশাপাশি সামসি কলেজেও তৃণমূল ছাত্র পরিষদের তরফে অধ্যক্ষকে ঘেরাও করে বিক্ষোভের জেরে তেতে উঠল মহকুমার দুই কলেজ।

চাঁচল কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কে ঘিরে অবস্থান বিক্ষোভ

সামসি কলেজেও বার্ষিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের অনুমতি কেন দেওয়া হচ্ছে না তার পাশাপাশি একাধিক অভিযোগ তুলে ঘেরাও বিক্ষোভ শুরু হয়। তবে সামসি কলেজে বিকালে ঘন্টাখানেক বাদে বিক্ষোভ তুলে নেওয়া হলেও চাঁচল কলেজে অনুমতি না মেলা পর্য়ন্ত ঘেরাও চলবে বলে হুমকি দিয়েছে ছাত্র পরিষদ।
চাঁচল কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ড.নুরুল ইসলাম বলেন-‘পড়ুয়ারা কলেজে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করার দাবি করে।কিন্তু নিরাপত্তা বিঘ্নিত হওয়ার আশংকায় পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে অনুমতি দেয়া হয় নি।এখানে আমার কিছুই করার নেই,বিক্ষুব্ধ পড়ুয়াদের বিষয়টি বোঝানোর চেষ্টা করেছি।কিন্তু তারা তার পরেও অবস্থান বিক্ষোভ করে।

সামসি কলেজের অবস্থান বিক্ষোভ

প্রশাসন অনুমতি না দিলে আমরা কি করতে পারি।’
কলেজ সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার চাঁচল কলেজের বার্ষিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পুলিশের অনুমতি মেলেনি। একইভাবে পুজোর ছুটির আগে সামসি কলেজেও অনুমতি না মেলায় ওই অনুষ্ঠান এখনও হয়নি। তারপরেই এদিন দুপুর তিনটে থেকে দুই কলেজেই অধ্যক্ষকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ শুরু করে ছাত্র পরিষদ ও টিএমসিপি। চাঁচল কলেজে ছাত্র পরিষদ ও সামসি কলেজে টিএমসিপি ছাত্র সংসদের দায়িত্বে রয়েছে।
চাঁচল কলেজের ছাত্র পরিষদের জিএস নজমুল হক বলেন, ‘আগাম প্রস্তুতি নিতে এরমধ্যে অনেক টাকা খরচ হয়ে গিয়েছে। অনুষ্ঠান না হলে কলেজ তো সেই টাকা আমাদের দিবে না।’
সামসি কলেজে অনুষ্ঠানের অনুমতি না মেলার পাশাপাশি একাধিক দাবি রয়েছে। অধ্যক্ষকে হেনস্থা করায় টিএমসিপির জিএস নাসিরুদ্দিনের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ জানিয়েছিলেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। তারপর থেকে তাকে কলেজে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না।কেন তাকে কলেজে ঢুকতে দেওয়া হবে না সেই দাবি তুলেও অধ্যক্ষকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখানো হয়।
সামসি কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল ওয়াহাব বলেন, ‘জিএসের নামে এফআইআর থাকায় তাকে কলেজে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না।’
চাঁচলের মহকুমাশাসক দেবাশিস চট্টোপাধ্যায় বলেন, অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়ার বিষয়টি পুলিশের। এ বিষয়ে চাঁচলের আইসি সুকুমার মিশ্র বলেন, এবার জেলার কোনও কলেজেই বার্ষিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়া হয়নি।ফলে প্রশাসনের নির্দেশ ছাড়া কলেজ কর্তৃপক্ষের অনুষ্ঠান করার অনুমতি দেওয়া সম্ভব নয় বলেই কলেজ সূত্রে জানাগেছে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here