শিক্ষিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ দিনহাটার প্রভাবশালী এক তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে

0
143

মনিরুল হক, কোচবিহারঃ

দিনহাটার প্রভাবশালী তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে টানা ধর্ষণের অভিযোগ আনলেন এক শিক্ষিকা। গতকাল রাতে ওই ঘটনা নিয়ে দিনহাটা থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। এরপরেই দিনহাটা হাসপাতালে ধর্ষণের শিকার ওই মহিলার ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়। এদিন দিনহাটা আদালতে তাঁর গোপন জবান বন্দি নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। অভিযুক্ত ওই তৃণমূল কংগ্রেস নেতার নাম নুর আলম হোসেন। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ঘাসফুল শিবিরে।

teacher raped by tmc leader in dinhata | newsfront.co
ফাইল চিত্র

অভিযোগ, দীর্ঘদিন যাবত ওই তৃণমূল নেতা ওই মহিলাকে ধর্ষণ করে গেছেন। ওই মহিলা অভিযোগ করে বলেন, তিনি একজন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা এবং তাঁর স্বামী হাইস্কুলের শিক্ষক। তাঁদের একটি সন্তান রয়েছে। এক সময় নূর আলম হোসেন ও তার পরিবারের সুসম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপরেই তাকে কু প্রস্তাব দিতে থাকে ওই তৃণমূল নেতা। শুধু তাই নয়, তাঁর প্রস্তাব ফিরিয়ে দিলে সে তাকে হুমকি দেয় বলে অভিযোগ।

এরপর গত বছর ২৬শে অক্টোবর তাঁকে বাড়িতে একা পেয়ে জোর করে ধর্ষণ করে ওই তৃণমূল নেতা। আর ধর্ষণের সময় ছবি তুলে রেখে প্রতিদিন তাকে ব্ল্যাকমেল করে টানা ধর্ষণ করতে থাকে বলেও অভিযোগ। চলে প্রাণে মারার হুমকিও। শেষ পর্যন্ত ভয়কে উপেক্ষা করে পুলিশ প্রশাসনের দ্বারস্থ হয় ওই নির্যাতিতা।

আরও পড়ুনঃ সোমবার থেকেই রাজ্যে খুলল মদের দোকান,হবে হোম ডেলিভারিও

তবে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা নূর আলম হোসেন বলেন, ওই পরিবারের সাথে আমার খুব ভালো সম্পর্ক রয়েছে। তবে ওই মহিলা কেন এমন অভিযোগ করল তা বুঝতে পারছিনা। এর পিছনে কোন রাজনৈতিক অভিসন্ধি রয়েছে বলে তিনি মনে করছেন। তিনি আরও বলেন, আমার বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ মিথ্যা এবং উদ্দেশ্যপ্রনিত। কোন চক্রান্ত করে ফাঁসানো হয়েছে।

এদিকে এই বিষয়ে তৃণমূলের জেলা কার্যকারী সভাপতি পার্থপ্রতিম রায় বলেন, “অভিযোগ দায়ের হলেই কিছু প্রমাণিত হয় না। এর পিছনে রাজনৈতিক অভিসন্ধি থাকতে পারে। পুলিশ নিরপেক্ষ ভাবে তদন্ত করবে। আর তদন্তে সত্যতা প্রমান হলে নিন্দনীয় ঘটনা। রাজ্য নেতৃত্বকে জানিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485