টেক্সাসে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে খুন বাঙালি মহিলা গবেষক

0
44

নিজস্ব সংবাদদাতা, ওয়েব ডেস্কঃ

প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে দুষ্কৃতিদের হামলায় প্রাণ হারালেন আমেরিকার টেক্সাসের প্লেনো সিটি নিবাসী বাঙালি গবেষক শর্মিষ্ঠা সেন। টেক্সাসেই তিনি মলিকিউলার বায়োলজির উপর গবেষণা করতেন। পরিচিত ছিলেন ফার্মাসিস্ট হিসেবে। এছাড়াও ক্যান্সার আক্রান্তদের নিয়ে কাজ করতেন বছর ৪৩-এর শর্মিষ্ঠা।

Sharmista Sen | newsfront.co
শর্মিষ্ঠা সেন। সংবাদ চিত্র

ধানবাদের সিন্দরীর মেয়ে শর্মিষ্ঠা। সেখানেই প্রাথমিক পড়াশোনার পরে বেঙ্গালুরুতে। তবে পরিবারের কেউ এখন ধানবাদে থাকেন না। শর্মিষ্ঠার মা-বাবা কলকাতায় থাকেন। টেক্সাসে স্বামী অরিন্দম রায় এবং দুই ছেলে নীল ও রায়ানের সঙ্গে থাকতেন শর্মিষ্ঠা।

প্রতিদিন ভোরবেলায় পরিবারের অন্য কেউ ঘুম থেকে ওঠার আগেই তিনি প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে পড়তেন। তার অন্যথা হয়নি ১ অগস্ট, শনিবারও। কিন্তু সেদিন তাঁর আর বাড়ি ফেরা হয়নি। ১ অগস্ট স্থানীয় একটি পার্কে তিনি জগিং করছিলেন, তখনই তাঁকে কুপিয়ে খুন করে দুষ্কৃতিরা। পার্ক থেকে কিছু দূরেই তাঁর দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায় বলে সংবাদসূত্রে খবর।

আরও পড়ুনঃ বেইরুট বিস্ফোরণ: মৃত কমপক্ষে ৭৮, আহত ৪ হাজারের বেশি

পুলিশের অনুমান, ডাকাতির উদ্দেশেই হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। যৌন হেনস্থাও করা হয়। খুনের তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। ইতিমধ্যে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে বাকারি মনক্রিফ নামে ২৯ বছরের এক যুবককে মঙ্গলবার গ্রেফতার করেছে প্লেনো সিটির পুলিশ। সে কলিন কাউন্টি জেলে বন্দি।

কিন্তু কেন তাঁকে এভাবে খুন করা হল তা এখনও স্পষ্ট নয়। এছাড়াও যে দুষ্কৃতিরা তাঁকে খুন করেছে তারাই স্থানীয় একটি বাড়িতে ঢুকে সেখানেও হামলা চালায়। প্রচুর জিনিস ভাঙচুর করে দামি কিছু সামগ্রী নিয়ে উধাও হয়ে যায়। তবে এমন ঘটনায় উদ্বেগ তৈরি হয়েছে পুলিশ মহলে। ইদানিং এই ধরনের ঘটনা বেড়েছে টেক্সাসে। শুধুমাত্র ডাকাতির উদ্দেশ্য নিয়েই খুন করে ফেলছে দুষ্কৃতিরা।

আরও পড়ুনঃ বেইরুট বিস্ফোরণে মজুত খাদ্যশস্য ক্ষতিগ্রস্থ, চিন্তিত লেবানন সরকার

অবিলম্বে এই গ্যাংকে আটক করার নির্দেশ দিয়েছে টেক্সাস পুলিশ। ফিটনেস ফ্রিক শর্মিষ্ঠা প্রতিদিন ছেলেরা ঘুম থেকে ওঠার আগেই জগিং করতে আসতেন এই পার্কে। ঘটনায় শোকের ছায়া শর্মিষ্ঠার পরিবারে। শর্মিষ্ঠার বড় ভাই সুমিত চিকিৎসক। থাকেন ক্যালিফর্নিয়ায়। খবর পেয়েই শর্মিষ্ঠার টেক্সাসের বাড়িতে ছুটে এসেছেন তিনি। বলছিলেন, ‘ও খুব চনমনে, পজিটিভ একজন মানুষ ছিল। কারও সঙ্গে নতুন আলাপ হলেও খুব সহজে নিজের করে নিত।’

মঙ্গলবার পার্কের মধ্যেই একটি স্মরণসভার আয়োজন করেন প্রতিবেশীরা। শান্ত একটা পাড়ার মধ্যে এই নৃশংস খুন ভাবাচ্ছে তাঁদের। এছাড়াও শর্মিষ্ঠাকে ওই অঞ্চলের সকলেই চিনতেন তাঁর গবেষণার সুবাদে। এত ভালো একজন প্রতিবেশীকে হারিয়ে শোকস্তব্ধ তাঁরা।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here