গর্ভবতীর চিকিৎসায় গাফিলতিতে মৃত সদ্যোজাত,ক্ষোভ

0
42

শিবশংকর চ্যাটার্জ্জী,দক্ষিন দিনাজপুরঃ

the new born baby dead for Negligence
নিজস্ব চিত্র

লেবার রুমে গর্ভবতী মহিলার ওপর অত্যাচার করে।গর্ভস্থ শিশুকে মেরে ফেলার অভিযোগ কর্তব্যরত নার্স ও ডাক্তারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ।

ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাট সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে।দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার কুমারগঞ্জ ব্লকের মুংলিস পুরের বাসিন্দা জয়দেব পালের গর্ভবতী স্ত্রী বৃষ্টি মহন্ত পাল প্রসব যন্ত্রণা নিয়ে বালুরঘাট সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি হন সেই সময় সঙ্গীতা দাস রোগী দেখলেও সোমবার সকালে তাকে ছুটি দিয়ে দেওয়া হয়।

the new born baby dead for Negligence
নিজস্ব চিত্র
the new born baby dead for Negligence
নিজস্ব চিত্র

বাড়ি ফিরে বৃষ্টি দেবীর আবারও প্রসব যন্ত্রণা অনুভব হলে তাকে আবারও বালুরঘাট সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।সে সময় দীর্ঘক্ষন কর্তব্যরত চিকিৎসা অরূপ দে ও কর্তব্যরত নার্সরা বৃষ্টি মহন্ত পাল কে চিকিৎসা না করে ফেলে রাখেন বলে অভিযোগ।

আরও পড়ুনঃ গড়বেতায় অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তির ক্ষতবিক্ষত মৃতদেহ উদ্ধার

the new born baby dead for Negligence
নিজস্ব চিত্র

এরপর দীর্ঘ সময় কেটে যাওয়ার পর বৃষ্টি মহন্ত পালের বাড়ির লোকের অনুনয়-বিনয়ের ফলে প্রসূতিকে লেবার রুমে নিয়ে যাওয়া হয়।এরপর লেবার রুমে বৃষ্টি দেবীর ওপর অকথ্য অত্যাচার চালানো হয় বলে অভিযোগ।তার পেটে পা তুলে পুশ করানো হয় এছাড়াও তাকে চড় থাপ্পড়ও মারা হয়। যে কারনে গর্ভস্থ শিশু পেটেই পায়খানা করে দেয় বলে অভিযোগ।এরপর শিশুটি ভূমিষ্ট হলেও তাকে আশঙ্কা জনক অবস্থায় এসএনসিইউতে ভর্তি করা হয়।

এই ঘটনার প্রেক্ষিতে গতকালই শিশুর পরিবারের তরফে হাসপাতাল সুপার, সিএমওএইচ এবং পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ জানানো হয়।

আজ সকালে শিশুটি শেষ লড়াইয়ে হেরে গিয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে।সেই খবর শিশুর বাড়ির লোকের কাছে পৌঁছাতেই তারা ক্ষোভে ফেটে পড়ে।এরপরে ঘটনা স্থলে পুলিশ পৌঁছাতেই শিশুর বাড়ির লোক পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে থাকে। পরে মৃত শিশুর পরিবারের লোকেরা মৃত শিশুকে নিয়েই সিএমওএইচের কাছে এসে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে থাকেন।

এরপর সিএমওএইচ বালুরঘাট হাসপাতালের সুপারকে সঙ্গে নিয়ে মৃত শিশুর পরিবারের লোকেদের সাথে আলোচনায় বসেন। আলোচনা শেষ সিএমওএইচ মৃত শিশুর পরিবারের লোকেদের আশ্বাস দেন যে, অভিযুক্ত চিকিৎসককে বর্তমানে জেলারই গঙ্গারামপুর হাসপাতালে বদলি করা হবে।

অভিযুক্তের বিরুদ্ধে তদন্তের আশ্বাস দিলে মৃত শিশুর পরিবারের লোকেদের ক্ষোভের কিছুটা প্রশমন ঘটলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here