কীর্তনে ‘জয় শ্রীরাম’ বলায় বিপত্তি,তিরবিদ্ধ বিজেপি কর্মী

0
40

পিয়ালী দাস,বীরভূমঃ

the objection of saying jai shree ram
তিরবিদ্ধ ব্যক্তি। নিজস্ব চিত্র

শেষ দফা ভোট এখনো বাকি এর মধ্যেই দিকে দিকে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষের খবর শোনা যাচ্ছে।এদিন এক বিজেপি কর্মীকে তিরবিদ্ধ করার অভিযোগ উঠলো তৃণমূলের বিরুদ্ধে। ‘জয়শ্রীরাম’ বলায় সন্তোষ সেন নামের ওই বি.জে.পি কর্মীকে তিরবিদ্ধ করা হয় বলে অভিযোগ।ঘটনাটি বীরভূমের ময়ূরেশ্বরের ধর্মরাজতলা পাড়ার। জখম সন্তোষ সেনকে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে।গতরাতে ময়ূরেশ্বর ধর্মরাজতলায় পুজো উপলক্ষ্যে কীর্তন গান হচ্ছিল।

স্থানীয় সূত্রে খবর,অনুষ্ঠান চলাকালীন এক বি.জে.পি কর্মীর জয়শ্রীরাম ধ্বনি দেওয়াকে কেন্দ্র করে ঝামেলা শুরু হয়। বন্ধ হয়ে যায় অনুষ্ঠান।তৃণমূল ও বি.জে.পি কর্মী-সমর্থকরা একে অপরের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে পড়ে।স্থানীয় বি.জে.পি কর্মী সন্তোষ সেনের মধ্যস্থতায় তখনকার মতো ঝামেলা মিটে যায়। ফের শুরু হয় কীর্তন গান।কিন্তু,শান্তির বাতাবরণ বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি।

আরও পড়ুনঃ গোসবায় বিজেপি কর্মীদের মারধরের অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

বিজেপি-র অভিযোগ, ঝামেলা থেমে যাওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যে তৃণমূলের কয়েকজন তাদের লক্ষ্য করে তির মারতে শুরু করে।সন্তোষ সেনের পিঠে তির লাগে ।এবারে অশান্তি চরম আকার নেয়।দু’পক্ষের লোকজন একে অপরকে লক্ষ্য করে ইট ছু়ড়তে শুরু করে।

ময়ূরেশ্বর থানার পুলিশ এসে পরিস্থিতি সামাল দেয় ।ঘটনা প্রসঙ্গে বিজেপি-র বীরভূম জেলা সম্পাদক অতনু চ্যাটার্জি বলেন, “আমরা পার্টির তরফ থেকে ৮ জন তৃণমূল কর্মীর নামে ময়ূরেশ্বর থানায় অভিযোগ জানিয়েছি। অবিলম্বে দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি ।”

যদিও স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব তির ছোড়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছে।যদিও বীরভূম জেলা পুলিশের রামপুরহাটের এসডিপিও সোমেশ্বর বড়ুয়া জানান, “জিজ্ঞাসাবাদে তিরবিদ্ধ ব্যক্তি জানিয়েছেন তিনি কোন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত নন।” হিংসার যেন বিরাম ঘটছে না কিছুতেই।এলাকায় রয়েছে চাপা উত্তেজনা।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485