ত্রিকোণ প্রেমের জেরে আত্মঘাতী দ্বিতীয় বর্ষের পড়ুয়া

0
159

সিমা পুরকাইত,দক্ষিন ২৪ পরগনাঃ

the second year student suicide for confusing love
আত্মঘাতী দীপঙ্কর পলতা।ফাইল চিত্র

পৃথিবী ছেড়ে চলে যাওয়ার আগে সবাইকে কিছু কথা বলার উদ্দেশ্যে লিখে রাখে সুইসাইড নোট।যে নোটে সে তার প্রেমিকা জয়শ্রীকে তার খুনী বলে উল্লেখ করেছে।

the secound year student suside for confusing love
নিজস্ব চিত্র

ত্রিকোন প্রেমের জেরে বছর তেইশের দীপঙ্কর পলতার ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয় বাড়ি থেকে একটু দূরে নির্জন বাগান বাড়িতে,আজ সকালে।একই সঙ্গে উদ্ধার হয় একটি স্মার্ট ফোন এবং উল্লিখিত সুইসাইড নোটটি,যেটি তার মাকে উদ্দেশ্য করে লেখা।ঢোলাহাট থানার তেলেগ্রামের ঘটনা।আত্মঘাতী দীপঙ্কর কুল্পি পলিটেকনিক কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল।

আরও পড়ুনঃ শিলিগুড়িতে ত্রিকোণ প্রেমের জেরে খুন হল স্বামী,গ্রেফতার স্ত্রী

the second year student suicide for confusing love
উদ্ধার হওয়া সুইসাইড নোট।নিজস্ব চিত্র

স্থানীয় এবং পরিবার সূত্রে জানা যায় যে,পার্শ্ববর্তী হাঁচকি গ্রামের জয়শ্রী মন্ডলের সাথে দীর্ঘ পাঁচ বছরের প্রেমের সম্পর্ক ছিল দীপঙ্করের।সে কথা দীপঙ্করের পরিবারের সকলেই জানত বলেও পরিবার সূত্রে জানা যায়।কিন্তু সাম্প্রতিক কালে তাদের সম্পর্কের অবনতি হতে শুরু করে।সেই অবনমন রোধ করে সম্পর্ককে সঠিক পরিনতি দিতেই মাস দুয়েক পূর্বে দীপঙ্কর জয়শ্রী বিবাহ রেজিষ্ট্রেশন করাই।

কিন্তু ইতিমধ্যে জয়শ্রীর সাথে অন্য একটি ছেলের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।পারিবারিক সূত্রে অর্থিক ভাবে পশ্চাৎপদ দীপঙ্কর জয়শ্রীর এই ব্যবহার মেনে নিতে পারে না।

the second year student suicide for confusing love
তাপসী পলতা,মৃতের বোন।নিজস্ব চিত্র

সম্পর্কের দাবী নিয়ে রবিবার জয়শ্রীদের বাড়ি যায় দীপঙ্কর।সেখান থেকেই ফিরেই আত্মঘাতী হয়।মৃতের মায়ের বয়ান অনুযায়ী,জয়শ্রী দীপঙ্করকে অর্থনৈতিক দূর্বলতার উল্লেখ করে বিচ্ছেদের দাবী করে।

the second year student suicide for confusing love
পিন্টু মন্ডল,স্থানীয় বাসিন্দা।নিজস্ব চিত্র

দীপঙ্কর এলাকায় নম্র ভালো ব্যবহারের জন্য সকলেরই প্রিয়।তার এই অকাল প্রায়নে শোকসন্তপ্ত স্থানীয় বাসিন্দারা,একই সঙ্গে তারা দোষীদের আইনানুগ কঠোর শাস্তির দাবী করেছেন।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485