দুই বিজেপি কর্মীকে মারধরের অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

0
18

অমৃতা চন্দ,কোচবিহারঃ

 

এনআরসি ও নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে দিনহাটা শহরে মিছিল করে ফেরার পথে  বিজেপি কর্মীদের উপর আক্রমনের অভিযোগ উঠে তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী সমর্থকদের বিরুদ্ধে। সোমবার সন্ধ্যায়  মিছিলের পর  বাড়ি  ফেরার পথে বিজেপি কর্মীদের দলীয় কার্যালয় থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে মারধরের  অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে।  দিনহাটা দুই ব্লকের  নিগমনগর ঘাটপার এলাকায় এই ঘটনায় ব্যাপক আলোড়ন  ছড়িয়ে পড়ে। বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে বসে থাকা দুই কর্মীকে  বাইরে ডেকে নিয়ে গিয়ে মারধর করা হয় এদের মধ্যে একজন দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আর এক জনকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়।

injured | newsfront.co
আক্রান্ত। নিজস্ব চিত্র

বিজেপির পক্ষ থেকে তৃনমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে  এনআরসি ও নাগরিকত্ব আইন নিয়ে সাধারন মানুষকে ভুল বোঝানো হচ্ছে বলে অভিযোগ তোলা হয়েছে।      এদিকে তৃণমূলের পক্ষ থেকে এই ঘটনার সাথে দলের কোন সম্পর্ক নেই বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এই ঘটনা বিজেপির অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের বলেও পাল্টা অভিযোগ আনা হয়েছে। এদিকে সাহেবগঞ্জ   পুলিশ সূত্রে  জানা গেছে   ঘটনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।বিজেপির কোচবিহার জেলা সহ সভাপতি ব্রজগোবিন্দ বর্মণ, জেলা সম্পাদক সুদেব কর্মকার জানান দিনহাটা শহরে তৃণমূলের লুঙ্গি মিছিল শেষে ওই দলের কর্মী সমর্থকরা ফেরার সময় নিগম নগরে তাদের দলের দুই কর্মীকে দলীয় কার্যালয় থেকে বের করে নিয়ে এসে মারধর করে। এদের মধ্যে বিধান বর্মনের আঘাত গুরুতর  বলেও তিনি জানান। গোটা ঘটনা পুলিশকে জানানো হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

 

দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিজেপি কর্মী  বিধান বর্মন জানান এদিন সন্ধ্যায় তারা দলীয় কার্যালয়ে বসে টিভি দেখছিলেন। সে সময় বড়শাকদল  গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃনমূল কংগ্রেসের   প্রধান তাপস দাসের নেতৃত্বে তৃণমূলের বেশ কয়েক জন  কর্মী সমর্থকরা দিনহাটায় লুঙ্গি মিছিল করে ফেরার পথে তাদের অফিসের সামনে এসে  অফিস থেকে  ডেকে নিয়ে গিয়ে বেধড়ক মারধর করে। এরপর স্থানীয়রা এগিয়ে এলে তৃণমূলের কর্মীরা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে দলের নেতাকর্মীরা ছুটে এসে তাদের উদ্ধার করে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসে।

বিষয়টি নিয়ে তৃণমূল নেতা বড়শাকদল গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান তাপস দাস বলেন বিজেপির পক্ষ থেকে যে অভিযোগ তোলা হয়েছে তা ঠিক নয়। নতুন  ও পুরনো  বিজেপি কর্মীদের মধ্যে ক্ষমতা দখলকে নিয়ে নিজেদের মধ্যে গন্ডগোলকে ঘিরে মারপিঠের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনা তৃণমূলের ঘাড়ে দোষ চাপানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

 

আরও পড়ুনঃ৩০ কেজি গাঁজা উদ্ধারে চাঞ্চল্য আইআইটি চত্বরে

দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রের কার্যকরী কমিটির আহ্বায়ক বিষ্ণু সরকার বলেন এই ঘটনা বিজেপি অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের। এর সাথে তৃণমূলের কোন সম্পর্ক নেই।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে  ঘটনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here