গোয়ায় তৃণমূলের জেতার কোনো সম্ভাবনা দেখছেন না অরবিন্দ কেজরিওয়াল

0
56

শরীয়তুল্লাহ সোহন, ওয়েব ডেস্কঃ

আম আদমি পার্টির সাথে রাজনৈতিক ময়দানে তৃণমূলের সম্পর্কটা বরাবরই দারুণ বলে সবাই মানে। কিন্তু এই সম্পর্ককে উড়িয়ে গোয়ায় তৃণমূল কংগ্রেসকে দারুণ ভাবে বিঁধলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। স্পষ্ট ভাষায় জানালেন, “গোয়ার বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের কোন প্রকার জয়ের সম্ভাবনা দেখছেন না তিনি। ”

Arvind Kejriwal
দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল

২০২২ সালে গোয়ায় বিধানসভা নির্বাচন। সেই নির্বাচনকে মাথায় রেখে গোয়ায় যাচ্ছেন বিভিন্ন দলের নেতা কর্মীরা। অন্যদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক ব্যানার্জী বাংলার বাইরে বিভিন্ন রাজ্যে প্রভাব বিস্তারের প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। তাঁরই অংশ হিসেবে গোয়াকে পাখির চোখ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। আসন্ন নির্বাচনে তাই তারা দারুণভাবে আশাবাদী একটা ভালো ফল করার। কিন্তু কেজরিওয়ালের এমন মন্তব্য তৃণমূলকে অনেকটা ব্যাকফুটে ঠেলে দেবে বলে ধারণা রাজনৈতিক মহলের।

তৃণমূল কংগ্রেসের পাশাপাশি আম আদমি পার্টিও বিধানসভা ভোটে অংশগ্রহণ করছেন। তাঁরই অংশ হিসেবে গোয়ার রাজধানী পানাজিতে সভা করেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। আজ বুধবার সেই সভা থেকে দুর্নীতি মুক্ত গোয়া গড়ার ডাক দেন তিনি। পাশাপাশি তিনি বলেন, দুর্নীতি দমনে দিল্লির মতো জিরো টলারেন্স নীতি চালু করার আশ্বাস দেন। সভা চলাকালীন প্রশ্ন-উত্তর পর্বে এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন, গোয়ায় প্রতিদ্বন্দ্বি হিসেবে তৃণমূলের রণ কৌশল নিয়ে কি ভাবছেন? এই প্রশ্নের উত্তরে কোন রাখঢাক না রেখে তিনি জানান, “আমার মনে হয়, তৃণমূল কংগ্রেসকে আপনারা বেশি গুরুত্ব দিয়ে ফেলেছেন। গোয়ায় তৃণমূলের ১ শতাংশ জনসমর্থন নেই। সদ্য তিনমাস আগে তারা গোয়ায় এসেছে। গণতন্ত্র এভাবে চলে না। তাঁর জন্য পরিশ্রম দরকার। মানুষের মধ্যে থেকে কাজ করতে হয়। গোয়ায় তৃণমূলকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। আমার মতে ওদের কোন জেতার সম্ভাবনা নেই।”

যদিও এমন মন্তব্যর পর তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে সেভাবে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি। বরং তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে সৌগত রায় এমন বক্তব্যকে গুরুত্ব দিতে নারাজ। তিনি এ প্রসঙ্গে বলেন, “কেজরিওয়াল তাঁর নিজের মতামত ব্যক্ত করেছেন, এই ব্যাপারে আমি কিছু বলতে চাই না। দল প্রতিক্রিয়া জানাবে। কেজরিওয়াল এর কথায় আমরা ভরসা করে চলি না। আমরা আমাদের শক্তি জানি, আর প্রতিনিয়ত আমরা এখানে সংঘবদ্ধ হচ্ছি। প্রতিদিন বিভিন্ন দলের বড়ো বড়ো নেতারা আমাদের দলে যোগ দিচ্ছেন।”

আরও পড়ুনঃ “সিপিএম জ্যোতিবাবুকে খারিজ করে সাফল্য পেয়েছিল”, ঠিক কার দিকে ইঙ্গিত তথাগতর?

যদিও দেশের রাজনীতির ময়দানে বিজেপি বিরোধী ইস্যুতে তৃণমূল ও আপ কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই করেছে। ব্যক্তিগতভাবে তৃণমূলের সুপ্রিমো, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে অরবিন্দ কেজরিওয়াল এর সম্পর্ক খুব ভালো। ২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনের আগে কেজরিওয়ালকে ডেকে ব্রিগেড ময়দানে সভা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এছাড়াও ২০২১ সালে বিধানসভা নির্বাচনে বাংলায় বিজেপি হারানোর জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানান কেজরিওয়াল। তবে গোয়ায় কেনই বা এভাবে তৃণমূলকে আক্রমণ করলেন এই নিয়ে ধন্দে দেশের রাজনৈতিক মহল?

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here