বিজেপি পঞ্চায়েত সদস্যদের দ্বারা মহিলা তৃণমূল কর্মী আক্রান্ত

0
79

হরষিত সিংহ,মালদহঃ

পুরনো মামলা প্রত্যাহার না করায় এক মহিলা তৃণমূল কর্মীকে লাঠি দিয়ে মারধর করার অভিযোগ উঠল বিজেপি গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্যসহ সাত জনের বিরুদ্ধে।
মালদহ জেলার বামনগোলা থানার চাঁদপুর পঞ্চায়েতের নন্দীনাদহ গ্রামে ঘটনা। গুরুতর জখম অবস্থায় ওই মহিলা বর্তমানে মালদা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন।ঘটনায় সাতজনের বিরুদ্ধে বামোনগোলা থানায় অভিযোগ দায়ের করলে তদন্তে নামে পুলিশ।

আক্রান্ত তৃণমূল কর্মীর আঘাত।ছবিঃঅভিষেক দাস

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, আক্রান্ত মহিলার নাম, অন্নপূর্ণা গাইন(২২)।বাড়ি নন্দীনাদহ গ্রামে। জানা গিয়েছে, গত দেড় বছর আগে সুভাষ ভক্তর বিরুদ্ধে একটি শ্লীলতাহানির অভিযোগ করেছিলেন অন্নপূর্ণা দেবী। এতদিন কেটে যাওয়ার পর ২০১৮ সালে পঞ্চায়েত নির্বাচনে সুভাষ ভক্ত বিজেপি দল থেকে নির্বাচিত হন।এরপরই ওই মহিলাকে মামলা প্রত্যাহারের জন্য চাপ দিতে থাকেন সুভাষ বাবু। অভিযোগ, গত শনিবার বাড়িতে গিয়ে ওই মহিলাকে হুমকি দেন এবং মামলা প্রত্যাহার করতে বলেন। এই ঘটনায় ওই মহিলা গত সোমবার আবারও সুভাষ ভক্তর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন বামনগোলা থানায়। জানা গিয়েছে, ওই মহিলার স্বামী একজন রেলকর্মী সে বাইরে থাকেন। বাড়িতে মহিলা একাই থাকেন।অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ ঘটনার তদন্ত করতে যায়। পুলিশ চলে যাওয়ার পর মঙ্গলবার বিকেলে ওই মহিলাকে রাস্তায় ফেলে মারধরের অভিযোগ ওঠে সুভাষ ভক্তসহ সাতজনের বিরুদ্ধে। মহিলা তৃণমূল কর্মীকে আহত অবস্থায় প্রথমে মোদিপুকুর হাসপাতাল এবং সেখান থেকে রাতেই তাকে স্থানান্তর করা হয় মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। বর্তমানে সেখানেই চলছে তার চিকিৎসা।
দলীয় কর্মীরা জানিয়েছেন, পুরনো বিবাদকে কে কেন্দ্র করে এই ঘটনা। চাঁদপুর গ্রাম পঞ্চায়েত বর্তমানে ত্রিশঙ্কু হয়ে আছে। পঞ্চায়েতে রয়েছে ১২ টি আসন। যা ৬টি তৃণমূল এবং ৬টি বিজেপির দখলে রয়েছে।পঞ্চায়েত গঠনের ক্ষেত্রে সমস্যা রয়েছে। সেই কারণেই সুভাষ ভক্ত তার বিরুদ্ধে যে মামলা রয়েছে তা প্রত্যাহার করার চাপ দেন ওই মহিলাকে।তবে ঘটনার তদন্তে নামে পুলিশ।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here