আগের জৌলুস আর নেই,আছে পুজো টিকিয়ে রাখার চেষ্টা

0
95

নিজস্ব সংবাদদাতা,আলিপুরদুয়ারঃ
একটা সময় যা ছিল গৌরবের তা এখন শুধুই টিকিয়ে রাখার লড়াই।অতীত যেন থমকে রয়েছে নিমতি ঝোরা চা-বাগানের শ্রমিক মহল্লায়।
বিংশ শতকের শুরুতে আদর্শ পরিবেশকে কাজে লাগিয়ে ইংরেজরা ডুয়ার্সের বিভিন্ন প্রান্তে গোড়পত্তন করেছিলেন বেশ কয়েকটি চা বাগানের।

নিজস্ব চিত্র

চায়ের বানিজ্যিক লাভ দেখে বহু বাঙালি ব্যবসায়ীও এগিয়ে এসেছিলেন এই শিল্পে।১৯১২ সালে জলপাইগুড়ির প্রসিদ্ধ ব্যবসায়ী রাজেন্দ্র কুমার নিয়োগী এই নিমতি ঝোরা চা-বাগানের স্থাপন করেছিলেন।এই বাগানকে কেন্দ্র করেই বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্প ও জলদা পাড়া অভয়ারন্যর সংযোগ স্থলে গড়ে উঠেছিলো এক ছোট্ট জনপদ।বাগানের বাঙালি বাবু এবং আদিবাসী শ্রমিকদের আবদারে কোম্পানির অন্যতম কর্নধার তথা বাগানের ম্যানেজার বাদল নিয়োগীর উদ্যোগে শুরু হয়েছিলো প্রথম দূর্গা পূজো।একটা সময় এলাকার তথা সমগ্র ডুয়ার্সের সেরা পূজো গুলির মধ্যে অন্যতম ছিলো নিমিতি ঝোড়া চা বাগানের পূজো।নিয়মিত দূর্গা পূজো করতে তৈরি হয় চালা ঘর।জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে দর্শনার্থীরা আসতেন পূজো দেখতে।এমন কি পূজোর চার দিন অন্য জেলা থেকে আগত দর্শকদের সংখ্যাও থাকত চোখে পড়ার মতো।চা বাগানের এই পুজোকে কেন্দ্রকরে গ্রামে মেলার আয়োজন হত। সেখানে যাত্রা পালা,প্রজেক্টার দিয়ে সিনেমা দেখা সহ মনোরঞ্জনের সমস্ত কিছুই থাকত।এলাকায় প্রায় শতাধিক নারকেল গাছ ছিল।পুজোর সময় সবকটি গাছ থেকে নারকেল পেড়ে সেই নারকেল দিয়ে তৈরি করা হত নাড়ু এবং পূজা দেখতে আসা দর্শনার্থীদের মধ্যে তা দু হাত দিয়ে বিলি করা হত।

কিন্তু পরবর্তীতে একবিংশ শতকের শুরুর থেকেই ক্রমেই ভাটা পড়তে থাকে এই চা শিল্পে।যার জেরে এলাকায় বন্ধ হয়ে যায় বহু বাগান।বহু বাগান মালিক তাদের ক্ষতির পরিমান কমাতে শুরু করেন কর্মী ছাটাই।ধীরে ধীরে জৌলুশ হারাতে শুরু করে নিমতি ঝোড়ার দুর্গা পূজা। বর্তমানে তা বিষণ্ণতার পুজোয় পরিনত হয়েছে। ২০০৬ সালে বাগানের মালিকানা হস্তান্তরের পর পূজোর দায়িত্বে এখন নতুন মালিক কতৃপক্ষ।

নিজস্ব চিত্র

এখন আর প্রতিমা বাগানের মন্দির প্রাঙ্গনে তৈরি হয় না।বসেনা যাত্রা পালা ও গানের আসর।তবুও বাগানের সকলের লক্ষ একটাই প্রায় একশরও বেশি বছর আগের বাগানের এই পূজাকে কেন্দ্র করে বাগানের মানুষদের যে উন্মাদনা ছিলো, আয়োজনে ছোট হলেও সেটা টিকিয়ে রাখার চেষ্টা।

আরও পড়ুনঃ সাড়ে তিনশ বছরের পাল বাড়ির পূজা

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here