দ্য রাজবংশী ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড কালচারাল বোর্ড-এ উত্তর দিনাজপুরের দুই প্রতিনিধি

0
36

তপন চক্রবর্তী, উত্তর দিনাজপুরঃ

বর্তমান রাজ্য সরকার উত্তরবঙ্গের রাজবংশীদের উন্নয়নের জন্য গঠন করে ছিল ‘দ্য রাজবংশী ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড কালচারাল বোর্ড’ উন্নয়ন বোর্ডটি গোটা উত্তরবঙ্গের জন্য হলেও কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি এই তিন জেলার মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল। সামিল করা হয়নি দার্জিলিং, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর ও মালদাজেলাকে। এমনকি নেওয়া হয়নি বাকি জেলা গুলি থেকে সদস্য পদ। তাই গত জুন মাসের ১৭ তারিখে জেলা শাসক শ্রী অরবিন্দ কুমার মিনার হাতে তিন দফা দাবি পত্র তুলেদিয়েছিল দি গ্রেটার কোচবিহার পিপলস এসোসিয়েশনের জেলা কমিটি, রাজবংশী গাভুর সংঘ, রাজবংশী ভাষা শিক্ষা সংসদ তথা “রাজবংশী সামাজিক সংগঠন সমন্বয় কমিটি।’

two Representative of north dinajpur | newsfront.co
নিজস্ব চিত্র

কমিটির প্রথম দাবি ছিল উন্নয়ন বোর্ডে উত্তর দিনাজপুর তথা বাকি জেলা গুলোকে যুক্ত করতে হবে ,
মনীষি রায় সাহেব ঠাকুর পঞ্চানন বর্মার নিজ হাতে তৈরী করা ১০০ বছরের রায়গঞ্জ ক্ষত্রিয় হোস্টেল ভগ্ন ভুতুরের ঘরে পরিনত হয়েছে । সেটাকে আধুনিকিকরন করতে হবে এবং হেমতাবাদ ব্লকে মনিষী রায় সাহেব ঠাকুর পঞ্চানন বর্মার নামে কলেজ স্থাপন করতে হবে।

ইতিমধ্যেই প্রথম দাবি পূরণ হয়েছে এবং উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর জেলাকে বোর্ডের সঙ্গে সামিল করা হয়েছে এবং উত্তর দিনাজপুরের রাজবংশী সম্প্রদায়ের লড়াকু সংগ্রামী যুব নেতা মাননীয় মোহনলাল সিংহ ,দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে মাননীয় বিপ্লব বর্মনকে উন্নয়ন বোর্ডের সদস্য করা হয়েছে।

মোহনলাল সিংহ জানিয়েছেন,” পশ্চিমবঙ্গ সরকার আমাকে রাজবংশী উন্নয়ন বোর্ডের সদস্য করেছেন আমি সরকারকে ধন্যবাদ জানাই।
আমি উত্তর বঙ্গের উন্নয়নে সামিল হয়ে উত্তর দিনাজপুর জেলার উন্নয়ন করার আপ্রাণ চেষ্টা করছি। আমি সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি, উত্তর দিনাজপুরের ভাওয়াইয়া, খন, বিষহরা গান চর্চা করার জন্য পঞ্চানন ভবন নামে চর্চা কেন্দ্র বানানো হোক যাতে এখানকার মানুষ নিজের লোক সংস্কৃতি নিয়ে চর্চা করতে পারে ও রায়গঞ্জ ক্ষত্রিয় হোস্টেলকে আধুনিকীকরন করা হোক।

আরও পড়ুনঃ কাশ্মীর ইস্যুতে শান্তি বজায় রাখার বার্তা আমেরিকার

জেলা শাসক অরবিন্দ কুমার মিনা জানিয়েছেন, আমি রাজবংশীদের উন্নয়নের কথা মাথায় রেখেছি। তাদের দাবি গুলো পুরন করার চেষ্টা করছি।

উত্তর দিনাজপুর জেলা বোর্ডে যুক্ত হওয়ায় রাজবংশী সম্প্রদায়ের মানুষ খুশি।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here