পড়শুড়ায় তৃণমূলের গোষ্ঠিদন্দ মিটবে কি? – উঠছে প্রশ্ন

0
131

নিজস্ব সংবাদদাতা ,পুরশুড়া,হুগলী:-              এলাকা কার দখলে থাকবে সেই টানাপোড়েনকে কেন্দ্র করে  কিছু দিন ধরেই উতপ্ত হুগলী জেলার পুরশুড়া ব্লক। । জানা গেছে গোষ্ঠী দন্দ্ব মেটাতে সম্প্রতি তারকেশ্বরের প্রশাসনিক বৈঠক থেকে নেতাদের কড়া বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী ।

বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যাচ্ছে, মুখ্যমন্ত্রী তারকেশ্বরের প্রশাসনিক বৈঠকে কড়া ভাবে বলে দেন পুরশুড়া নিয়ে কাউকে ভাবতে হবে না , বিষয়টি তিনি নিজে দেখবেন -বিধায়ক বহিরাগত হওয়ায় তাকে সংগঠন দেখতে হবে না । বিধায়ক তহবিলের উন্নয়ন করবে ডাঃ এম নুরুজ্জামান , আর সংগঠন দেখবে পারভেজ রহমান । মুখ্যমন্ত্রী এই ঘোষণায় নাকি মাথায় বাজ পড়ে যাওয়ার মত অবস্থা হয় বর্তমান বিধায়ক ডাঃ এম নুরুজ্জামান পন্থী জয়নাল-লাল্টু বাহিনীর । মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ পালন করার জন্য ও এলাকার সকল তৃণমূলীদের এক করার জন্য ঈদের দিন পারভেজ রহমান পুরশুড়া বিধানসভার প্রতি বুথের নেতাদের আমন্ত্রণ করে প্রায় চার হাজার জনকে বিরিয়ানি খাওয়ান । এর পরই বর্তমান বিধায়ক পন্থী জয়নাল,লাল্টু,হুদাদের পায়ের তলার মাটি টিকিয়ে রাখার জন্য ঈদের পরের দিন থেকেই গ্রামে গ্রামে সন্ত্রাস সৃষ্টি করে । দফায় দফায় গোষ্ঠী সংঘর্ষ , গুলি , বোমাবাজির ঘটনা চলতেই থাকে । অবস্থা সামাল দিতে প্রশাসনকে হিমশিম খেতে হয় । অনেকই প্রশ্ন তুলেন তাহলে কী পারভেজ রহমান সংগঠন সামলাতে পুরোপুরি অক্ষম ?

কিন্তু তারপরই গতকাল যে ছবি দেখা যায় তাতে এলাকাবাসীরা কিছুটা হলেও সস্তির নিঃসাস ফেলেছে ।

এই সেই বিতর্কিত কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চলার অঙ্গীকার।

দেখা যায় পারভেজ রহমান মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ পালন করতে ও এলাকার গোষ্ঠীদন্দ্ব মেটাতে বর্তমান বিধায়ক ডাঃ এম নুরুজ্জামানকে গলা জড়িয়ে ধরেন ।
এলাকার সাধরণ মানুষের আশা যে পারভেজ রহমানের মত দক্ষ নেতার হাত ধরে হয়ত পুরশুড়া ব্লকে অশান্তির আগুন নিভবে ।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here