বক্সিরহাটে বিজেপির থানা ঘেরাও, জমায়েত থেকে ছোঁড়া ঢিলে আহত সাংবাদিক

0
11

মনিরুল হক, কোচবিহারঃ

গ্রেফতার হওয়া দলীয় কর্মীদের মুক্তি দেওয়ার দাবিতে তুফানগঞ্জের বক্সিরহাটে থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাল বিজেপি। আজ বিকেলে ওই থানা ঘেরাও কর্মসূচী হয়। ওই থানা ঘেরাও কর্মসূচীর নেতৃত্ব দেন আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বার্লা, বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক রথীন বোস ও কোচবিহার জেলা বিজেপির সভানেত্রী মালতি রাভা।

members protest | newsfront.co
নিজস্ব চিত্র

ওই থানা ঘেরাও কর্মসূচী চলার সময় জমায়েত থেকে ঢিল ছোঁড়া হয় বলে অভিযোগ। এতে খবর সংগ্রহ করতে যাওয়া এক সাংবাদিক আঘাত পান বলেও জানা গিয়েছে। যদিও বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে,

আরও পড়ুনঃ লোকাল ট্রেন চালানোর দাবিতে বীরভূমের একাধিক স্টেশনে স্মারকলিপি জমা কংগ্রেসের

তৃণমূল কংগ্রেস তাদের ওই থানা ঘেরাও কর্মসূচীর মধ্যে ঢুকে পড়ে এমন ঘটনা ঘটিয়েছে।
গত বুধবার তুফানগঞ্জের শিকারপুর এলাকায় এক বিজেপি কর্মী নিগৃহীত হয়ে খুন হন। ওই ঘটনায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে পরের দিন ১২ ঘণ্টা তুফানগঞ্জ বনধ পালন করে বিজেপি।

member protest | newsfront.co
জমায়েত। নিজস্ব চিত্র

বনধের সমর্থনে মিছিল করতে গিয়ে বক্সিরহাটের জোড়াই মোড় এলাকায় তৃণমূলের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে বিজেপি। পরে পুলিশ লাঠি চার্জ করতে বাধ্য হয়। এছাড়াও তুফানগঞ্জের বেশ কিছু জায়গায় গণ্ডগোলের সৃষ্টি হয়। বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ ২৮ জনকে গ্রেফতার করে। গতকাল তাদের তুফানগঞ্জ মহকুমা আদালতে তোলা হলে গ্রেফতার হওয়া বিজেপি কর্মীদের জামিনের আবেদন বাতিল হয়ে যায়।

আরও পড়ুনঃ শ্রাদ্ধের আগের দিন বাড়ি ফিরলেন ‘মৃত’ করোনা রোগী, হতভম্ব আত্মীয়-স্বজন

police officers | newsfront.co
নিজস্ব চিত্র

এরপরেই বিজেপি জেলা সভাপতি মালতি রাভা এদিনের ওই থানা ঘেরাও কর্মসূচির ডাক দেন। ওই কর্মসূচীতে অংশ নিতে এদিন সকালেই আসেন আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ জন বার্লা, রাজ্য সাধারণ সম্পাদক রথীন বোস। সকালে তুফানগঞ্জে পৌঁছে স্থানীয় নেতৃত্বের সাথে আলোচনা করেই নিগৃহীত হয়ে মৃত শিকারপুর এলাকার বিজেপি বুথ সম্পাদক কালাচাঁদ কর্মকারের বাড়িতে যান ওই নেতৃত্বরা।

আরও পড়ুনঃ জেলা পরিষদ অফিসের সামনে রিকশা চালকের মৃতদেহ উদ্ধার, চাঞ্চল্য মেদিনীপুরে

কালাচাঁদ কর্মকারের পরিবারের লোকজনের সাথে দেখা করে নেতৃত্বরা থানা ঘেরাও কর্মসূচীতে অংশ নিতে যান। বিজেপির রাজ্য সম্পাদক রথীন বোস অভিযোগ করে বলেন, “পুলিশ রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে প্রকাশ্যেই কাজ করে যাচ্ছে।

বিজেপি কর্মী খুন হওয়ার পরেও খুনি তৃণমূল কংগ্রেসের লোকজন গ্রেফতার হচ্ছে না। অথচ মিথ্যে মামলায় ফাঁসিয়ে বিজেপি কর্মীদের জামিন অযোগ্য ধারায় জেলে পাঠিয়ে দিচ্ছে। মানুষ এর বদলা অবশ্যই নেবে।”

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485