শাহীনবাগে লুকানো ক্যামেরা-সহ ধৃত বোরখা পরিহিত গুঞ্জা কাপুর, চাঞ্চল্য

0
818

ওয়েবডেস্ক, নিউজফ্রন্টঃ

দিল্লির শাহীনবাগে বোরখা পরিহিত এক মহিলার গতিবিধিতে উত্তেজনা নিয়ে দিনভর উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া।  বুধবার সকালে গুঞ্জা কাপুর নামক এক মহিলা বোরখা পরে শাহীনবাগের নতুন নাগরিকত্ব সংশোধন আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলনকারী মহিলাদের মাঝে ঢুকে নানাবিধ প্রশ্ন করতে শুরু করলে ধর্নায় অংশগ্রহণকারী মহিলাদের মধ্যে কয়েকজন তাকে ঘিরে ধরেন। শুরু হয় তল্লাশি। তল্লাশিতে তার কাছ থেকে পাওয়া যায় লুকিয়ে রাখা একটা ক্যামেরা। সেই ক্যামেরা ঘিরে উত্তেজনা আরও বেড়ে যায়। খবর যায় পুলিশের কাছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে সেই মহিলাকে সরিয়ে নিয়ে যায়। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম থেকে তার উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি উত্তর দেন “এটা সংবাদ মাধ্যমের জন্য সেরা মুহূর্ত না”।

টুইটারে নিজেকে রাজনৈতিক বিশ্লেষক হিসেবে দাবি করা গুঞ্জা কাপুর ‘রাইট ন্যারেটিভ’ নামক একটি ইউটিউব চ্যানেল চালান। সেই চ্যানেলের ফলোয়ার হিসেবে আছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, বিজেপি সাংসদ তেজস্বী সূর্যের মত তাবড় তাবড় ব্যক্তিত্ব।

ইতিমধ্যে শাহীনবাগ জামিয়া নিয়ে উত্তপ্ত দেশের রাজনীতি। ঘটেছে একাধিকবার গুলি চালানোর ঘটনা।সেই নিয়ে উঠে এসেছে নয়া তথ্য। দিল্লি পুলিশের প্রকাশ করা তথ্য ভুল বলে দাবি করল অভিযুক্ত কপিল গুজ্জরের পরিবারের লোক।

মঙ্গলবার দিল্লি পুলিশ একটি ছবি প্রকাশ করে দাবি করে কপিল গুজ্জর আপের সদস্য এবং সে ও তার বাবা এক বছর আগে আপে যোগ দেয়। এই তথ্য প্রমাণ করার ভিত্তি হিসাবে পুলিশের কাছে কপিলের ফোন থেকে পাওয়া একটি ছবি ছিল, যেখানে আপ সদস্য সঞ্জয় সিং ও আতিশি মার্লেনের সাথে কপিল ও তার বাবাকে দেখা যায়।

ছবিতে শাহিনবাগ গুলিকাণ্ডে অভিযুক্ত যুবককে আপের দলীয় টুপি পরে থাকতেও দেখা যায়। এরপরেই ওই ছবি নিয়ে তোলপাড় হয় দিল্লির রাজনৈতিক মহল। যদিও আপের তরফ থেকে তৎক্ষণাৎ ওই অভিযোগ অস্বীকার করে বলা হয় যে গোটা বিষয়টিই বিজেপির ষড়যন্ত্র।

ছবির সত্যতাসত্য সম্পর্কে খোঁচা দিয়ে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিবাল বলেছেন, কারও সাথে কোনও ব্যক্তির ছবি থাকলেই কি এটা প্রমাণ হয় যে সেই ব্যক্তি কোনও একটি রাজনৈতিক দলের সদস্য? পাশাপাশি কেজরিবাল বলেন, সামনে নির্বাচন তাই বিজেপি এখন শাহিনবাগকে হাতিয়ার করে অনেক কথাই বলবে, অনেক ষড়যন্ত্র করবে।

এইসবের মধ্যে কপিলের বাবার মন্তব্য আরও বিতর্কের সৃষ্টি করে। কপিলের বাবা ও ভাই সাফ জানিয়েছেন আম আদমি পার্টির সাথে তাদের কোনও যোগ নেই। জাতীয় গণমাধ্যমকে দেওয়া একটি বিবৃতিতে কপিলের বাবা গাজে সিং বলেন, ‘আপের সঙ্গে আমার বা আমার পরিবারের কোনও সম্পর্ক নেই। লোকসভা নির্বাচনের সময় (গত বছর) ওঁরা প্রচারে এসেছিলেন। সেই সময়েই ওঁরা আমাদের সবাইকে আপের টুপি পরিয়ে দেন এবং ছবি তোলেন।’

গাজে সিং-এর মন্তব্যে ছবির সত্যতা নিয়ে জমে থাকা ধোঁয়াশা অনেকটাই পরিস্কার হয়ে গিয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই কপিল গুজ্জরের পরিবার থেকে পাওয়া এই তথ্যে তোলপাড় হয়েছে দিল্লি পুলিশের অন্দরমহল।

শাহীনবাগে লুকানো ক্যামেরা-সহ ধৃত বোরখা পরিহিত গুঞ্জা কাপুরের উপস্থিতি নিয়ে দিনভর টুইটারে চলছে বিতর্ক। তাই বলাই বাহুল্য সবকিছু মিলিয়ে দিল্লির নির্বাচন, জামিয়া ও শাহীনবাগ নিয়ে উত্তপ্ত দেশের রাজনীতি।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here