আবার অধ্যাপক ড.মহম্মদ ইসমাইলের উদ্যোগে তাঁতিবাগ বায়তুল মাল সোসাইটির ত্রাণ বিলি

0
150

উমার ফারুক, নিউজ ফ্রন্ট,হরিশ্চন্দ্রপুর,২৯সেপ্টেম্বর:

শারদ উৎসবে মানুষ মেতে উঠেছেন এই ব্যস্ততার মাঝেই আবার তাঁতিবাগ বায়তুল মাল সোসায়টির উদ্যোগে ত্রাণ বিলি করা হল আবার মালদায়।গতকাল হরিশ্চন্দ্রপুর ২ব্লকের দৌলতনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের ভৈরবপুর গ্রামের ৮০টি পরিবার কে নগদ ৫০০টাকা,১০০০ টাকা করে তুলে দেওয়া হয়।

টাকা তুলে দিচ্ছেন ড: ইসমাইল।

যাদের অধিকাংশই বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত বিধবা,অনাথ,ভিক্ষুক, প্রতিবন্ধী ও অন্যান্য অসহায় ব্যক্তি।সংস্থার পক্ষে ত্রাণ বিতরণ করেন সমাজসেবী অধ্যাপক ড.মহম্মদ ইসমাইল।সহায়তা করেন অধ্যাপক মুর্তজা আহমেদ, মেডিক্যাল পড়ুয়া রহমতুল্লাহ,গবেষক ওয়াসিম রেজা,শিক্ষক মহম্মদ শহীদুল্লাহ,আব্দুল খালেক প্রমুখ।এছাড়াও সহযোগিতা র হাত বাড়িয়ে দেন শিরিষবোনা লাইব্রেরির সদস্য বৃন্দ।

আগেরবার ত্রাণ বিতরণের সময়।

গৃহহীন নেহারি বেওয়া,মাহতাব হোসেন,আকবর আলী প্রমুখ জানান-বন্যায় আমাদের সহায় সম্বল সব শেষ হয়ে গেছে।অনেক সময় অনাহারে দিন কাটাতে হচ্ছে।এই অবস্থায় হাজার টাকা অনেক বড় পাওনা।এর ফলে কদিন পেটে খেতে তো পাব।ফসল নষ্ট হয়ে যাওয়ায় গ্রামে কোন কাজ ও পাওয়া যায়না।প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ড.ইসমাইলের উদ্যোগে উক্ত ব্লকের সাতটি গ্রাম পঞ্চায়েতের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন গ্রামে ধারাবাহিক ভাবে ত্রাণ বিতরণের কাজ চলছে।

সেই বন‍্যায়।

ড.ইসমাইলের মা সায়েদা বিবি পুত্রের এই মহৎ কাজে গর্বিত।তিনি বলেন-বন্যার্ত মানুষরা দূরদূরান্ত থেকে আমাদের বাড়িতে এসে ভীড় জমান ত্রাণের আশায়।ছেলে বাড়ি এলে অভুক্ত মানুষের ভীড় আরও বাড়ে।এলাকার বাসিন্দা মাইনুল হক,বেলাল হোসেন রা জানান-সরকারি ত্রাণ যখন এই এলাকায় এসে পৌঁছায়নি তখন ড.ইসমাইলের উদ্যোগে ত্রাণ ও মেডিক্যাল ক্যাম্প করা হয়।তাঁরই প্রচেষ্টায় বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ত্রাণ নিয়ে আমাদের এলাকায় ছুটে এসেছেন।আমাদের এই হতদরিদ্র অখ্যাত গ্রামে ড.ইসমাইলের মতো সমাজসেবী মানুষ কে পেয়ে আমরা গর্বিত।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485