‘আমি অন্যায় করেছি’ ফেসবুক স্বীকারোক্তি উদয়নের

0
36

মনিরুল হক,কোচবিহারঃ

guilt confession of udayan  on facebook
ফাইল চিত্র

লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে ১৮ টি আসনে বিজেপি জয়ী হওয়ার পরেই অনেক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনুরাগী আক্ষেপ প্রকাশ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট দিয়ে জানিয়েছিলেন দিদি উন্নয়ন করে ভুল করেছেন। তারপর উন্নয়নের একাধিক উদাহরণও তুলে ধরতে দেখা গিয়েছিল তাঁদের। এবার প্রায় একই কায়দায় তৃণমূল বিধায়ক তথা দিনহাটা পুসভার চেয়ারম্যান নিজের প্রসঙ্গে লিখলেন ফেসবুকে।
তাঁর পোস্টকে ঘিরে কেউ পাশে দাঁড়িয়ে বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়েছেন।কেউ আবার সমালোচনাও করেছেন।

guilt confession of udayan  on facebook
স্বীকারোক্তি

বুধবার রাতে নিজের ফেসবুক ওয়ালে ‘আমি অনেক অন্যায় করেছি’ শীর্ষকে দিনহাটা পুরসভার চেয়ারম্যান উদয়ন গুহ ৮ টি প্রসঙ্গ উল্লেখ করেন। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য, (১) দিনহাটা শহরে পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় গোলমাল থামাতে পারি নি। (২) কলেজের ছাত্র গোলমালের দায় আমার উপর বর্তায়। (৩) দিনহাটার পুকুর গুলি নষ্ট করেছি। কেউ জঞ্জাল ফেলতে পারে না বা নোংরা কাপড় ধুতে পারে না। (৪) অনেক রাস্তা ম্যাস্টিক করে মানুষের চলাফেরার অসুবিধে করেছি। (৫) অকারণে শহরে বেশী আলো লাগিয়ে টাকা নষ্ট করেছি।
(৬)ডাক্তার বাবুদের ফিজ ২৫০ টাকা বেঁধে দিয়েছিলাম।
(৭)নার্সিং হোমে সিজার কেসের প্যাকেজ বেধে দিয়েছিলাম।
(৮)দিনহাটার প্রান কেন্দ্র চৌপথি পরিস্কার ও যানজট মুক্ত করতে চেয়েছিলাম।
দিনহাটার মানুষ পছন্দ করেননি,শিক্ষা দিয়েছেন।
আমি অনুতপ্ত।

এবার রাজ্যের ৪২ আসনের মধ্যে বিজেপির ১৮ র একটি কোচবিহার কেন্দ্র। এই কেন্দ্রের ৭ বিধানসভার মধ্যে ৫ টিতে পিছিয়ে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। ৪ পুরসভার একটিতে এগিয়ে থাকতে পারে নি রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল। এতে ক্ষুব্ধ রাজ্য নেতৃত্ব। এই জেলায় ফের দলকে শক্তিশালি করতে নতুন জেলা সভাপতি ও কার্যকারী সভাপতি করা হয়েছে বিনয় কৃষ্ণ বর্মণ ও পার্থ প্রতিম রায়কে। কিন্তু কোনভাবেই দলের অবক্ষয় আটকাতে পারছেন না জেলা নেতৃত্ব। প্রায় প্রত্যেকদিন জেলার কোন না কোন গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য দলবল নিয়ে বিজেপিতে যোগদান করছেন। তৃণমূল নেতৃত্ব কার্যত গৃহবন্দী হয়ে রয়েছেন। মারখাচ্ছে সাধারণ তৃণমূল কর্মীরা। জেলার অনান্য অংশের সাথে দিনহাটারও একই অবস্থা। সম্প্রতি বিজেপির বিরুদ্ধে সন্ত্রাস ও পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে দিনহাটার সাহেবগঞ্জ থানায় ধর্নায় বসেছিলেন উদয়ন বাবু। যেখানে তাঁর সহ অবস্থানকারীদের সংখ্যা মাত্র হাতে গনা কয়েকজন।

আরও পড়ুনঃ বিজেপির সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে থানায় ধর্ণা উদয়নের

এই অবস্থায় ২০২০ তে পুরসভা ও ২০২১ বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে রাজ্যের অনেক তৃণমূল নেতৃত্বের মত উদয়ন বাবুও যে উদ্বিগ্ন সেটা ওই ফেসবুক পোস্টে বোঝা যায় বলে রাজনৈতিক মহলের ধারণা। আর সেই জায়গায় দাঁড়িয়েই হয়ত সোশ্যাল মিডিয়ায়  অনুতাপ, আত্মসমালোচনা ও অভিমানের কথা  উঠে এসেছে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here