বন‍্যা কবলিত স্কুল-কলেজগুলোয় পলির পাহাড়

0
130

বদরুল আলম, আরামবাগ:

গত কয়েকদিন আগে প্রবল বৃষ্টিতে দ্বারকেশ্বর নদীতে জলস্ফীতির কারণে হুগলি জেলার আরামবাগ এস.ডি.ও অফিস সংলগ্ন বাঁধ ভেঙ্গে যায় । ভরা নদীর জল প্রবল গতিতে এলাকা গ্রাস করে নেয় । বাড়ি , অফিসগুলির পাশাপাশি জলের তলায় চলে যায় ঐ এলাকার স্কুল গুলিও । জল নামার সাথে সাথে বেরিয়ে পরে স্কুল-কলেজগুলির কঙ্কালসার চেহারা ।

এমনই এক ভয়ংকর অবস্থায় মধ্যে পড়েছে আরামবাগের শিশুগুচ্ছ , রামমোহন বালিকা বিদ্যালয় , শিশু নিকেতন , আলিয়া একাডেমী ও আরামবাগ গার্লস কলেজ । গত এক সপ্তাহ আগেও যে স্কুলগুলির সামনে দিয়ে গেলেই ছাত্র ছাত্রীদের কোলাহল শোনা যেত , আজ সেখানে শ্মশানের শূন্যতা । স্কুলগুলি ঢাকা পড়েছে পলিতে । বেঞ্চ , আলমারি , চেয়ার , টেবিল সবই ভেঙ্গেছে । কাগজপত্র , খাতা সহ সমস্ত দরকারী জিনিষপত্র জলে গুলে পলির সাথে মিশেছে ।

জল ঢুকে নষ্ট হয়েছে শিশু গুচ্ছ স্কুলের কয়েক লাখ টাকার জিনিষপত্র । মাইক ব্যবহারের মেশিন , বক্স , কম্পিউটার , প্রিন্টার , সি.সি ক্যামেরার মেশিন , মনিটর , বায়োমেট্রিক মেশিন , ফ্রিজ , ল্যান্ডফোন , আসবাবপত্র সহ সবই ডুবে যায় জলে । স্কুল বিল্ডিং-এ কজের জন্য রাখা ৬৮ বস্তা সিমেন্ট জলের তলায় নষ্ট হয় । প্রতিটা স্কুলের জেনেরটর জলে ডুবে যায় । স্কুলগুলিতে এক হাঁটুর বেশি পলি পড়েছে । একই অবস্থা প্রতিটা স্কুলের । সকল কতৃপক্ষই এই পরিস্থিতির কথা জানিয়ে থানায় ডায়রি করেছে । একই সাথে এ.ডি.আই. , ডি.আই. সহ শিক্ষাদপ্তরে জাননো হয়েছে । পলি সরিয়ে ক্লাসরুম বের করতে হিমশিম খাচ্ছে স্কূল কর্তৃপক্ষ । প্রতিদিনই ২০-২২ জন করে শ্রমিক কাজ করে চলেছে । কবে থেকে স্কুল আবার চালু করতে পারবে তা নিয়ে চিন্তিত কর্তৃপক্ষ ।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here