এক মহিলা চাষীর কাহিনী

0
50

সজিবুল ইসলাম, মুর্শিদাবাদঃ

সংসারের হাল ধরতে পড়াশুনা ছেড়ে কৃষিকাজে যুক্ত হন মৌসুমী। তিনিই দিশা দেখাচ্ছেন অন্যান্য কৃষকদের। এমনই এক মহিলা চাষীর কথা হয়তো অনেকেরই অজানা । আজ থেকে প্রায় ছাব্বিশ বছর আগের কথা।  মুর্শিদাবাদের দৌলতাবাদ থানার মণ্ডলপাড়ার বাসিন্দা মৌসুমী বিশ্বাস তখন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ছাত্রী। পড়াশোনা ঠিকই চলছিল আচমকাএকটা দুঃসংবাদ এসে জীবনের স্বপ্ন সব নিমেষে শেষ করে দিয়ে চলে গেলো। বাড়ি থেকে সংবাদ, দুর্ঘটনায় মারা গেছেন পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী বড় দাদা।তখন মৌসুমির পরিবারে রয়েছেন মা,বোন,ছোট ভাই সহ দাদার ছেলে ও স্ত্রী। বাড়ি ফিরে দিশেহারা হয়ে পড়েন মৌসুমী। নিজের পড়াশোনা তো দূরের কথা, পরিবারের একবেলা খাবারের ব্যবস্থা কি ভাবে হবে সেটাই প্রধান চিন্তা। সেসব কথা ভেবে পড়াশোনা ছেড়ে বাড়ি ফিরে এসে সংসারের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেন মৌসুমী। কিন্তু কিভাবে চলবে সংসার? নিজে মহিলা কিই বা কাজ করবেন! মনে ভীড় করে এসব সাতপাঁচ চিন্তা। প্রথমে গ্রামের কিছু পড়ুয়াদের নিয়ে টিউশন শুরু করেন কিন্তু গ্রামের মানুষের তেমন অর্থ নেই যে সংসার চলার মত বেতন দিতে পারে।  কিন্তু তাহলে কি উপায় ?

মৌসুমী বিশ্বাস, নিজস্ব চিত্র

তখন মৌসুমীর পরিবারের সম্পত্তি বলতে মাত্র ছয় কাঠা মত একটা চাষের জমি ছিল। আর ছিল বড় দাদার রেখে যাওয়া কৃষি যন্ত্রগুলি। আর কোন কিছু না ভেবে সেই নিয়েই শুরু করে দেন সবজির চাষ। এই ভাবে পরিবারের সদস্যদের মুখে খাবার তুলে ধরতে শুরু করেন মৌসুমী। এদিকে চাষের বিষয়ে কোনো অভিজ্ঞতাও নেই , তাই কৃষি দপ্তরে গিয়ে প্রশিক্ষণ নেওয়া শুরু করেন  এবং সেই মত সবজি চাষ করতে থাকেন। সেই থেকে আজও জীবন যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছেন দৌলতাবাদের মৌসুমী বিশ্বাস। বতর্মানে  প্রায় বিঘা চারেক জমিতে চাষবাস করছেন বলেই জানিয়েছেন মৌসুমী।

আরও পড়ুনঃ বিপ্লবী আন্দোলনে মেদিনীপুর কলেজের ভূমিকা বিষয়ে আলোচনা সভা

একজন মহিলা হয়ে যেভাবে কৃষিকাজ করে চলেছেন সেই দেখে রাজ্য ও ভারত সরকারের একাধিক পুরস্কারের ভূষিত হয়েছেন দৌলতাবাদের মৌসুমী বিশ্বাস। এমনকি অন্যান্য রাজ্য থেকেও পুরষ্কার পেয়েছেন তিনি। এত বছরে নিজের পরিবারের দায়িত্ব নেওয়া ছাড়াও  অন্যান্য বহু কৃষকদের রোল মডেল হয়ে দাঁড়িয়েছেন মৌসুমী। সেদিনের সেই চাষের কাজ না জানা মৌসুমীর আজকের লক্ষ্য হল কিভাবে কম সার দিয়ে ও কীটনাশক বাদে কিভাবে কৃষি কাজ করা যায় তা নিয়ে নব্য কৃষকদের পথ দেখানো। তাঁর  কাজে কুর্নিশ জানিয়েছেন এলাকাবাসী থেকে বিভিন্ন মহল।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here