ভাব সাগরের মাঝি বাউল শিল্পী বাপ্পা ক্ষ্যাপা

0
159

শ্যামল রায়,নবদ্বীপঃ

the baul artist of bappa
নিজস্ব চিত্র

নদীয়া জেলার কৃষ্ণনগর মালিপাড়ায় বাস করেন বাংলার জনপ্রিয় বাউল শিল্পী বাপ্পা ক্ষ্যাপা।এই বাপ্পা ক্ষ্যাপা শারীরিক ভাবে প্রতিবন্ধী, তবে তত্ত্ব জ্ঞানে তার জুড়ি মেলা ভার। বাপ্পা ক্ষ্যাপা জানালেন খুব অল্প বয়সে হামজ্বর হয়ে একটি পা হারাতে হয়।বাপ্পার কাছ থেকে আরও জানা গেল তার বাবা গৌতম বিশ্বাস ও মাতা নিশা বিশ্বাস খুব গরীব ছিলেন ফলে এক প্রকার বিনা চিকিৎসায় হারাতে হয় বাম পা টি।মা নিশা বিশ্বাস জানায় খুব ছোট বেলা থেকে বাপ্পার বাউল গানের প্রতি ছিল দারুন ঝোক।

ছোট্ট বাপ্পার মনের কথা ভেবে দাদু সুশান্ত বিশ্বাস কে বলেন বাপ্পাকে গান শিখাতে।তার পর থেকে বাপ্পা গানের প্রতি মনোযোগ দেন।পরে বাংলার কীংবদন্তী বাউল ও লোকগীতি শিল্পী গোষ্ঠ গোপাল দাসের কাছে বেশ কিছু দিন ধরে বাউল ও লোকগীতির চর্চার সুযোগ মেলে। বাপ্পা প্রতিবন্ধী হওয়ার কারণে অনেকের তার প্রতি লক্ষ্য ছিল।অল্প কিছু দিনের মধ্যে বাপ্পার নাম মানুষের মুখে মুখে প্রচার পেতে থাকে,হয়ে ওঠেন একজন বাংলার বাউল জগতে জনপ্রিয় মুখ।

আরও পড়ুনঃ ‘সৌরপ্রভা’ সম্মান পেল শিশু নৃত্যশিল্পী অদ্রিজা

এরপর আর বাপ্পাকে পিছনে তাকাতে হয়নি। তিনি বাংলার সর্বত্র বাউল গান পরিবেশন করে মানুষের মন জয় করেছেন।বাপ্পা ক্ষ্যাপা জানায় এ পর্যন্ত তিনি দেশের বহু গুরুত্বপূর্ণ মেলায় অংশ গ্রহণ করেছেন।পেয়েছেন বহু পুরস্কার ও সম্মান। যা তার জীবনকে করে তুলেছে এক ভাব সাগরের মাঝি।বর্তমানের বাপ্পা ক্ষ্যাপার বয়স ৪৫ বছর। বাউল গান গেয়ে উপার্জন আর তাই দিয়ে চলে তাঁর সংসার।

পরিবারে রয়েছে দুই পুত্র,স্ত্রী অনিতা বিশ্বাস ও বৃদ্ধা মা।ইতিমধ্যে বিভিন্ন জায়গায় গান গেয়ে তিনি পেয়েছেন সরকারি শিল্পীর স্বীকৃতি। তবে আজ পর্যন্ত তৈরি করতে পারেননি উপযুক্ত বাসস্থান।বাংলার এই প্রতিবন্ধী শিল্পীর আরও বড় হওয়ার স্বপ্ন রয়েছে দু’চোখে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here