চার পরিবারের সদস্যদের ঘরছাড়া করার অভিযোগ প্রধানের বিরুদ্ধে

0
66

সীমা পুরকাইত,দক্ষিন ২৪ পরগনাঃ

The charge against the head of the four family members was dropped
গৃহবন্দী আক্রান্ত মহিলারা।নিজস্ব চিত্র

চারটি পরিবারকে গৃহবন্দির পাশাপাশি গ্রামের টিউবওয়েল থেকে জল নিতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি সেক গিয়াস ও পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে।

The charge against the head of the four family members was dropped
এই নিকাশী নালা ঘিরেই ঘটনার সূত্রপাত।নিজস্ব চিত্র

স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের দাপটে আজও ঘর ছাড়া রায় পরিবারের চার ছেলে।মহিলাদেরকে হেনস্থার পাশাপাশি স্কুলে যেতেও বাধা দিচ্ছে বলে অভিযোগ। ডায়মন্ড হারবার দুনম্বর ব্লকের রামনগর থানার সুকদেব পুরের ঘটনা। খুনের হুমকি মারধরের ঘটনায় আতঙ্কিত রায় পরিবারের ১৬জন সদস্য।

আরও পড়ুনঃ এক পরিবারের ছয়জন তৃণমূল প্রার্থী পঞ্চায়েতে

The charge against the head of the four family members was dropped
দিলীপ মন্ডল,আইএনটিইউসি জেলা সহসভাপতি।নিজস্ব চিত্র

গ্রামের নিকাশি ব্যবস্থা নিয়ে শুরু হয় ঘটনার সুত্রপাত । নুরপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সুকদেবপুর গ্রাম । এই গ্রামে বাস সন্ন্যাসি রায়, গৌর রায়, নিমাই রায় ও শ্রীমন্ত রায়ের। পেশায় এরা প্রত্যেকেই দিন মজুর । সুকদেবপুর গ্রামে রয়েছে তিন হাজার বাসিন্দা। দীর্ঘ দিন ধরে নিকাশি ব্যবস্থা না থাকায় সমস্যা হচ্ছিল গ্রামে।

The charge against the head of the four family members was dropped
আক্রান্ত শ্রীমন্ত রায়।নিজস্ব চিত্র

২০১৮ সালে শুরু হয় পঞ্চায়েতের উদ্দ্যোগে নিকাশির কাজ । ঠিক হয় নিকাশির জল ফেলা হবে গ্রামের সুতি খালে । কিন্তু যে পর্যন্ত ড্রেনের কাজ হওয়ার কথা, তা না করে শ্রীমন্ত রায়ের বাড়ির সামনে শেষ করে দেওয়া হয় নিকাশির কাজ । তার জেরে ঘটে বিপত্তি। গ্রামের নোংরা আর্বজনা জল আসে শ্রীমন্ত রায়ের বাড়ির সামনে। তারই প্রতিবাদ করেছিল শ্রীমন্ত রায় ও তার পরিবারের লোকজন।

The charge against the head of the four family members was dropped
আক্রান্ত গৌর রায়,আইএনটিইউসি কার্যালয়ে বসে।নিজস্ব চিত্র

আর এই কাজে বাধা দেওয়ার অজুহাতে বেধড়ক মারধর করে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব । ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে জখম হন গৌর রায় । মেরে দাঁত ভেঙে দেওয়া হয় তার বলে অভিযোগ গৌর রায়ের।এমনকি তিনি যে অটো চালাতেন সেটাও বন্ধ করে দেওয়া হয়। অভিযোগ নুরপুর তৃণমূল অঞ্চল সভাপতি সেক গিয়াস ও পঞ্চায়েত প্রধান ইয়াসিন গাজির নেতৃত্বে অত্যাচার চালায় গ্রামের তৃণমূল নেতা স্বরুপ হালদার, সন্দিপ হালদার ও মনজিৎ হালদার।

বাড়ির বৌ কৃষ্ণা রায় জানান পাঁচদিন ধরে গ্ৰামের টিউবওয়েল থেকে জল আনা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। রাম নগর থানার দারস্থ হলে পুলিশ তাদের সেখান থেকে বের করে দেয় বলে অভিযোগ । অসহায় পরিবার নাওয়া খাওয়া ভুলে গৃহবন্দি হয়ে পড়েছেন ।

এমনকি পড়াশোনাও করতে দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ । ঘটনার সমাধান চাইছেন অত্যাচারিত পরিবার । সাহায্য না পেয়ে তারা দারস্ত হন কংগ্রেস নেতৃত্বের কাছে । তাদের সহযোগে থানায় অভিযোগ হলেও আজও ঘরছাড়া গৃহস্থ বাড়ির চার সদস্য ।

যদিও পরে বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দেন ডায়মন্ড হারবার দুনম্বর ব্লকের তৃণমূল সভাপতি অরুময় গায়েন।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here