বঙ্গভঙ্গের প্রতিরোধ আন্দোলনকে মনে রেখে সম্প্রীতি বন্ধন দিবস

0
249

নিজস্ব সংবাদাতা,নিউজফ্রন্ট

১৯০৫ সালে বৃটিশ কর্তৃক বঙ্গভঙ্গের বিরুদ্ধে ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার উদ্দেশ্যে ১৬ই অক্টোবর রাখীবন্ধন দিবস পালিত হয়। তারপর শতাধিক বৎসর অতিক্রান্ত। কিন্তু কবির আকাঙ্খিত বিবিধের মাঝে মহা মিলনের ভারতবর্ষ আজও অধরা। শুধু তাই নয়,যত দিন যাচ্ছে বিভেদের বিষাক্ত কাঁটাগুলি সমাজদেহের রন্ধ্রে রন্ধ্রে প্রবেশ করে বীভৎস ক্ষত সৃষ্টি করছে।বঙ্গ ভঙ্গের বিরুদ্ধে মিলনের সেই ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট কে স্মরণে রেখে সম্প্রীতি মঞ্চ আজ ১৬ই অক্টোবর সম্প্রীতি বন্ধন দিবস পালন করল।

সম্প্রীতির রাখি পরাতে ব‍্যাস্ত এক ছাত্রী

সকাল আটটায় সি আর জি এস হাইস্কুল থেকে ফেস্টুন, প্ল্যাকার্ড সহ সুসজ্জিত মিছিল শহর বেলডাঙ্গা শহর পরিক্রমা করে।

সকালে

স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা, সাধারণ মানুষ ও এলাকার বিশিষ্ট ব্যক্তিরা মিছিলে সামিল হন।

মিছিল বেলডাঙ্গায়

যোগ দেয় বেলডাঙ্গা জাগরণ মঞ্চও। ছাত্রছাত্রীরা পরস্পরের হাতে সম্প্রীতি বন্ধন সূত্র বেঁধে দেয় ও পথ চলতি মানুষ ও দোকনদারদের হাতে সম্প্রীতি সূত্র বেঁধে দেয়।

মাদ্রাসা শিক্ষকদের রাখি পরাচ্ছেন প্রাক্তন প্রিন্সিপাল শ্রী সনৎ কর

সম্প্রীতি মঞ্চের সভাপতি বেলডাঙ্গা কলেজের প্বার্শস্থিত জলিলিয়া মাদ্রাসায় গিয়ে মাদ্রাসার ছাত্র ও শিক্ষকদের হাতে সম্প্রীতি সূত্র বেঁধে দেন ও তাদের সাথে কোলাকুলি করেন।

বিকেল পাঁচটায় বহরমপুর গোরাবাজার নিমতলার মোড় থেকেও সম্প্রীতি যাত্রা শুরু হয়ে শেষ হয় রবীন্দ্রসদনের সামনে।

বহরমপুর রবীন্দ্রসদনে

সেখানে রবীন্দ্রনাথের মূর্তিতে পুষ্প অর্পণ করেন প্রাক্তণ অধ্যক্ষ সনৎ কর।বক্তব্য রাখেন মুশিদাবাদ সাংবাদিক সঙ্ঘের সভাপতি বিপ্লব বিশ্বাস।

সি আর জি এস-এ

সারদিন ব‍্যাপী এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মোসলেউদ্দিন মোল্লা, মুর্শিদা খাতুন,আব্দুস সবুর,আনওয়ারুল হক, সামসুল হালসানা,আসাদুজ্জামান, হাসিবুর রহমান প্রমুখ। 

এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করা ছাত্র, শিক্ষক, গুণী জন ও জেলার সাধারণ মানুষের সম্প্রীতির আবেদন সাড়া ফেলবে বলেই বিশিষ্টজনেদের ধারণা।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here