কুযুক্তির জটজাল

0
38

পশ্চিমবঙ্গে জন পরিবহনের ভাড়াবৃদ্ধির কথা ঘোষণা করেছেন পরিবহণ মন্ত্রী।বাসের ভাড়া এক টাকা করে বাড়তে চলছে কিন্তু অনান্য পরিবহনের ভাড়া এখনো ঘোষিত হয় নি।রাজ্য সরকার শেষ ২০১৪ সালের সেপ্টম্বরে বাস ভাড়া বাড়ায় তারপর অতিক্রান্ত দীর্ঘ চার বছর জ্বালানির দাম উর্দ্ধমুখী অনান্য খরচও বাড়ছে ফলে জন পরিবহনের সাথে যুক্ত কর্মীদের রুজিরোজগারের দিক দেখেই এই সরকারী সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী।সার্বিক ভাবেই এর বিরোধিতা করার কিছু নেই।

কিন্তু জন পরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধি সত্যিই কতটা প্রয়োজনীয় ?প্রথমত জ্বালানির দাম বৃদ্ধির যে যুক্তি তা সত্যিই কি যুক্তিসঙ্গত? এদেশে পেট্রোল ডিজেলের দামের উপর কেন্দ্রবসায় ২৫.৪৪ শতাংশ কর আর পশ্চিমবঙ্গ সরকার এর উপর বসায় ২৩ শতাংশ ভ্যাট যা ভারতের অনান্য রাজ্যের চেয়ে বেশী।কেন্দ্রীয় কর,সেস আর রাজ্যের ভ্যাট মিলিয়ে জনসাধারণ একলিটার পেট্রোলের ডিজেলের দামের উপর ৫২.৯১ শতাংশ ট্যাক্স দেয়।যেখানে পাকিস্থানের জনসাধারণ দেয় মাত্র ২৩.৫ শতাংশ।ইউরোপের বিভিন্ন দেশের গড় করের পরিমান ২১ শতাংশ আর আমেরিকায় করের হার ১৭ শতাংশ। ভারতের থেকে নরওয়ে এবং নেদারল্যান্ডসের জনসাধারণ পেট্রোপন্যে বেশী কর দেয়।
ফলে সরকার যদি জনমুখী সিদ্ধান্ত নিতে বদ্ধ পরিকর হয় তবে জনসাধারণের উপর ট্যাক্সের বোঝা কমালেই যেখানে সমস্যার সমাধান হওয়া সম্ভব সেখানে ভাড়াবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত তবে কি জন্য?

আসলে জনমুখী উন্নয়নের বুলি কপচিয়ে আপামর জনসাধারণের উপর কর দরের বোঝা চাপিয়ে একটি শ্রেনীর স্বার্থরক্ষা করায় সরকারের নীতি।
দ্রব্যমূল্যের আকাশ ছোঁয়া মূল্যবৃদ্ধি পেট্রোপন্যের উর্দ্ধমুখী দামে নাজেহাল জনসাধারনের উপর জনপরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধি মরার উপর খাঁড়ার ঘা ছাড়া আর কি বা বলা যায়।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485